বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Viral video: ‘টুম্পা সোনা’র তালে মদের বোতল নিয়ে উদ্দাম নাচ শিক্ষকদের! ক্ষমা চাইল স্কুল
ভিডিয়োতে এইভাবেই নাচতে দেখা যায় শিক্ষকদের।

Viral video: ‘টুম্পা সোনা’র তালে মদের বোতল নিয়ে উদ্দাম নাচ শিক্ষকদের! ক্ষমা চাইল স্কুল

  • শিক্ষক তপন রায় জানান, ‘যে ঘটনাটি ঘটেছে সেটা বিদ্যালয়ের পরিসরের বাইরে। কোনও একটা ছুটির দিনে শিক্ষক এবং শিক্ষা কর্মীরা ব্যক্তিগত স্থানে মিলিত হয়েছিলেন। সেখানেই এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। এই ধরনের ঘটনা ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে খারাপ বার্তা নিয়ে যায়।’

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে উত্তর ২৪ পরগনার দত্তপুকুরের দীঘড়া হরদয়াল বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিক্ষিকারা পিকনিক করছিলেন। সেই পিকনিকে উদ্দাম নাচ করতে দেখা যায় শিক্ষক শিক্ষিকাদের। ‘টুম্পা সোনা’ গানের তালে আবার কোনও কোনও শিক্ষককে মদের বোতল হাতে তুলে নিয়ে নাচ করতে দেখা যায়। সম্প্রতি সেই ভিডিয়ো ভাইরাল জোর বিতর্ক তৈরি হয়েছে। শিক্ষকদের এরকম আচরণে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সেই ঘটনায় ক্ষমা চাইলেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক তপন রায়। ভবিষ্যতে আর এই ধরনের ঘটনা হবে না বলেই তিনি জানিয়েছেন। একই সঙ্গে তাঁর হুঁশিয়ারি এ নিয়ে যেন কোনও সোশ্যাল মিডিয়া, সংবাদ মাধ্যম, প্রিন্ট মিডিয়া বাড়াবাড়ি না করে। এ নিয়ে নতুন করে বিতর্ক তৈরি হয়েছে।

শিক্ষক তপন রায় জানান, ‘যে ঘটনাটি ঘটেছে সেটা বিদ্যালয়ের পরিসরের বাইরে। কোনও একটা ছুটির দিনে শিক্ষক এবং শিক্ষা কর্মীরা ব্যক্তিগত স্থানে মিলিত হয়েছিলেন। সেখানেই এই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। এই ধরনের ঘটনা ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে খারাপ বার্তা নিয়ে যায়। আর যাতে কখনও এই ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে সে বিষয়ে আমরা ওয়াকিবহাল থাকবো। এর জন্য আমরা অনুতপ্ত।’ এ বিষয়ে স্কুলের এক শিক্ষা কর্মী জানান, ‘এই ঘটনাটি ঘটেছে স্কুলের বাইরে। সেটা সম্পূর্ণ তাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। তবে যে ঘটনা ঘটেছে তাতে শিক্ষক থেকে শুরু করে অভিভাবক সকলেই লজ্জিত। আমরা চাই এই ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে।’

অন্যদিকে, অভিভাবকরাও এর সমালোচনা করেন। এক অভিভাবক জানান, ‘স্কুলের পড়াশোনা ঠিকমতো হচ্ছে কিনা সেটাই আমাদের দেখার বিষয়। তবে যতটা খবর আছে স্কুলে পড়াশোনা ভালোই হচ্ছে। তাতে কোনও ত্রুটি নেই। তবে ওনারা কী করছেন সেটা ব্যক্তিগত ব্যাপার। তবে ব্যক্তিগত বিষয় প্রকাশ্যে আসে কীভাবে সেটা ওনাদের ত্রুটি।’

উল্লেখ্য, পিকনিকে তাদের মদ্যপান করার পাশাপাশি সিগারেট খেতেও দেখা গিয়েছে। ঘটনাটি ফেব্রুয়ারি হলেও সম্প্রতি এই ভিডিয়ো ভাইরাল হয়েছে নেট মাধ্যমে। যদিও এই ভিডিয়োর সত্যতা যাচাই করেন হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা। তবে অনেকে প্রশ্ন তুলছেন যারা সমাজ গড়ার কারিগর তারা এরকম কীভাবে করতে পারেন?

বন্ধ করুন