বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Teachers' Job: আগামী ২ মাসেই ১৫,০০০ শিক্ষক নিয়োগ, অপেক্ষা আইনি জট কাটার, জানালেন ব্রাত্য
এসএসসির মাধ্যমে রাজ্য কবে থেকে আবার শিক্ষক নিয়োগ শুরু করবে, তা নিয়ে বিধানসভায় প্রশ্ন করেন পাথরপ্রতিমার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমীর জানা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
এসএসসির মাধ্যমে রাজ্য কবে থেকে আবার শিক্ষক নিয়োগ শুরু করবে, তা নিয়ে বিধানসভায় প্রশ্ন করেন পাথরপ্রতিমার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমীর জানা। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

Teachers' Job: আগামী ২ মাসেই ১৫,০০০ শিক্ষক নিয়োগ, অপেক্ষা আইনি জট কাটার, জানালেন ব্রাত্য

  • শিক্ষামন্ত্রীর দাবি অনুয়াযী, সেক্ষেত্রে নয়া বছরের শুরুর কয়েকদিনের মধ্যে নিয়োগ হবে।

আইনি জট কাটলেই স্কুল সার্ভিস কমিশনের (এসএসসি) মাধ্যমে আগামী দু'মাসে ১৫,০০০ শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। মঙ্গলবার বিধানসভায় একথা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু।

এসএসসির মাধ্যমে রাজ্য কবে থেকে আবার শিক্ষক নিয়োগ শুরু করবে, তা নিয়ে বিধানসভায় প্রশ্ন করেন পাথরপ্রতিমার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমীর জানা। সেই প্রশ্নের জবাবে ব্রাত্য জানান, আদালতের জট কেটে গেলে এসএসসির মাধ্যমে আগামী দু'মাসে ১৫,০০০ শিক্ষক নিয়োগ করা হবে।

এমনিতে এসএসসির মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া একাধিকবার আইনি জটে জড়িয়েছে। উচ্চ প্রাথমিক নিয়োগ প্রক্রিয়া (২০১৬ সালে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছিল) নিয়ে একাধিক অভিযোগ উঠেছে। সেইসব অভিযোগের ভিত্তিতে দীর্ঘদিন ধরে আইনি জটে আটকে ছিল নিয়োগ প্রক্রিয়া। গত জুলাইয়ে উচ্চ প্রাথমিকের নিয়োগের উপর থেকে অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশ তুলে দিয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গল বেঞ্চ। গত ৯ জুলাই কলকাতা হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল, তালিকা প্রকাশের কোনও অভিযোগ থাকলে সেই বিষয়ে ব্যবস্থা নেবে কমিশন। কারও অভিযোগ থাকলে দু'সপ্তাহের মধ্যে তা কমিশনের কাছে জানাতে হবে। সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখবেন সচিব পর্যায়ের আধিকারিক। অভিযোগ পাওয়ার ১০ সপ্তাহের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হবে। সেইমতো কমিশনের তরফে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছিল। পুজোর মধ্যেই নিয়োগের কথাও বলা হচ্ছিল। কিন্তু তা তো হয়নি। তারইমধ্যে চলতি মাসে অভিযোগের পাহাড়ে আপাতত নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।সেইসব অভিযোগের নিষ্পত্তির জন্য স্কুল সার্ভিস কমিশনকে (এসএসসি) তিন মাস বরাদ্দ করা হয়েছে। সেই সময়ের মধ্যে কোনও নিয়োগ করতে পারবে না কমিশন। এমনটাই নির্দেশ দিল বিচারপতি সৌমেন সেনের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ। হাইকোর্ট জানিয়েছে, ১৫ সপ্তাহ পর (তিন মাস তিন সপ্তাহ মতো) ফের মামলার শুনানি হবে। তার আগে যে অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য যে তিন মাস বরাদ্দ করা হয়েছে, সেই সময় শিক্ষা দফতরের সহ-অধিকর্তাকে প্রতিটি অভিযোগ বিচার করে দেখারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন