মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

নিজের জেলাতেই পোস্টিং পাবেন শিক্ষকরা, মমতার ঘোষণা নিয়ে ধোঁয়াশা

যদিও মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণা নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। কীভাবে পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে, তা নিয়ে ধন্দে রয়েছে শিক্ষক মহল।

দূর-দূরান্তে পোস্টিং নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। তা প্রশমনে এবার উদ্যোগী হল রাজ্য সরকার। নিজেদের জেলাতেই শিক্ষকরা পোস্টিং পাবেন বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন টুইট বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'আমাদের সব শিক্ষকদের কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্য সরস্বতী পুজোর আগেদিন একেবারে উপযুক্ত সময়। আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সব শিক্ষকরা নিজেদের জেলাতে পোস্টিং পারেন।'

কী কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তাও ব্যাখ্যা করেন মমতা। তিনি টুইটে লেখেন, 'এই ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের ফলে তাঁরা নিজেদের পরিবারের দেখভাল করতে পারবেন এবং শান্তি ও পূর্ণ মনোযোগের সঙ্গে কাজ করতে পারেন। দেশ গঠনের মতো অসাধারণ কাজে তাঁরা সাহায্য করতে পারবেন।'

মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণার পর অবশ্য তৈরি হয়েছে একাধিক বিভ্রান্তি। বিশেষত স্কুল,কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় - সব শিক্ষকরাই এই সুবিধা পাবেন কিনা, তা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর টুইটে বিস্তারিতভাবে কিছু বলা হয়নি। ফলে শিক্ষক মহলে ধোঁয়াশা রয়েছে।

পাশাপাশি শিক্ষক মহলের একটি অংশের বক্তব্য, এখন তো অনেকে শিক্ষক জেলার বাইরে দূর-দূরান্তে পোস্টিং রয়েছেন। তাঁদের কীভাবে নিজেদের জেলায় ফিরিয়ে আনা হবে? একসঙ্গে তা করাও অসম্ভব। তাহলে কতদিনের মধ্যে সেই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে বা কীভাবে হবে, তা নিয়েও ধন্দ ছড়িয়েছে।

এনিয়ে অবশ্য শিক্ষা দফতরের তরফে এখনও কিছু জানানো যায়নি। তবে সূত্রের খবর, নিজের জেলার বাইরে যে শিক্ষকরা রয়েছেন, তাঁরা মিউচুয়াল ট্রান্সফারের মাধ্যমে জেলার স্কুলে যোগ দিতে পারবেন।

তাতে যদিও ধন্দ কাটছে না। বরং সরকারি বিজ্ঞপ্তি জারির অপেক্ষায় রয়েছেন শিক্ষক


বন্ধ করুন