বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বাংলায় আবার উঠে এল জঙ্গিযোগ, এসটিএফের গোপন অভিযানে গ্রেফতার একাধিক

বাংলায় আবার উঠে এল জঙ্গিযোগ, এসটিএফের গোপন অভিযানে গ্রেফতার একাধিক

তিনজন সন্দেহভাজন জঙ্গিকে গ্রেফতার। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে পিটিআই)

এদের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের অন্তর্গত কাঁকসা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধি এবং ইউএপিএ আইনে মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে তিনজন নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে জড়িত বলে জানতে পেরেছেন এসটিএফের অফিসাররা।

আবার বড় সাফল্য পেল রাজ্যের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স। পশ্চিম বর্ধমানের কাঁকসা থানা এলাকা থেকে জঙ্গি যোগ সন্দেহে কয়েকজনকে পাকড়াও করল এসটিএফ। ধৃতদের মধ্যে একজনের নাম মহম্মদ হাবিবুল্লা। এসটিএফ সূত্রে খবর, ‘শাহাদাত’ নামে এক নতুন জঙ্গি গোষ্ঠী গড়ে উঠেছে। বাংলাদেশেও এই জঙ্গি গোষ্ঠী অত্যন্ত সক্রিয়। তাছাড়া বাংলাদেশের জঙ্গি সংগঠন ‘আনসার–আল–ইসলামের’ সঙ্গেও ‘শাহাদাত’ জঙ্গি সংগঠনের যোগ আছে। এমনকী ঘুরপথে আল–কায়দার সঙ্গেও যোগ রয়েছে বলে সন্দেহ গোয়েন্দাদের। কাঁকসা থানায় এখন জেরা করছে এসটিএফ। ধৃতদের মধ্যে তিনজন সরাসরি জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত বলে সন্দেহ এসটিএফের।

এদিকে এদের মধ্যে অনেকে আছে যারা স্কুল–কলেজের ছাত্র। তারা জঙ্গি নয়। জঙ্গি সংগঠনে যোগ দিতে যাচ্ছিল বলে সন্দেহ এসটিএফের। এসটিএফ সূত্রে খবর, ধৃত মহম্মদ হাবিবুল্লার সঙ্গে জঙ্গি সংগঠন ‘শাহাদাতের’ যোগ রয়েছে। জঙ্গি গোষ্ঠী ‘বিপ’ নামে একটি গোপন মেসেজিং প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে দু’‌পক্ষ যোগাযোগ করে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শনিবার পশ্চিম বর্ধমানের কাঁকসায় অভিযান চালান রাজ্যের স্পেশাল টাস্ক ফোর্সের অফিসাররা। তখনই কাঁকসার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয় মহম্মদ হাবিদুল্লাকে।

আরও পড়ুন:‌ একশো জনকে বিমানে করে নিয়ে যাচ্ছেন সাংসদ, নয়াদিল্লিতে শপথের সাক্ষী থাকবে বাংলা

অন্যদিকে কাঁকসা থানা থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরত্বে মীরেপাড়া এলাকায় হানা দেয় এসটিএফ। সেখান থেকে মহম্মদ হবিবুল্লা নামে এক কলেজ ছাত্রকে আটক করে। তার পর চলে টানা জিজ্ঞাসাবাদ করে। হবিবুল্লা পূর্ব বর্ধমানের বুদবুদ থানা এলাকার মানকর কলেজের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। বাংলাদেশের আনসার উল ইসলাম জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত বলে জানতে পেরেছে এসটিএফ। ওই জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় তথ্য আদানপ্রদান হতো। হবিবুল্লা এবং তার বাবা মহম্মদ ইসমাইল মুন্না ও পরিবারের কয়েকজনকে গ্রেফতার করে এসটিএফ। হবিবুল্লার বাড়ি থেকে নথি ও সামগ্রী উদ্ধার হয়েছে।

এছাড়া এদের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই আসানসোল দুর্গাপুর পুলিশ কমিশনারেটের অন্তর্গত কাঁকসা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। ভারতীয় দণ্ডবিধি এবং ইউএপিএ আইনে মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এদের মধ্যে তিনজন নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে জড়িত বলে জানতে পেরেছেন এসটিএফের অফিসাররা। হবিবুল্লার ভাই অষ্টম শ্রেণির ছাত্র তাকেও গ্রেফতার করেছে এসটিএফ। সবাইকেই কাঁকসা থানায় রাত পর্যন্ত জেরা করেছে এসটিএফ। শনিবার এসটিএফের প্রায় ২০ জনের দল অভিযান চালায়।

বাংলার মুখ খবর

Latest News

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ভোট, আসরে হাজির ওবামা, বাইডেনের উপর কি আর ভরসা রাখা সম্ভব? বৌদি সোহিনী শ্বশুরবাড়িতে কতটা খাপ খাইয়ে নিয়েছেন? জানালেন 'ননদিনি' দীপ্সিতা জনতা-পুলিশ খণ্ডযুদ্ধ মালদায়! বিদ্যুৎ বিভ্রাট ঘিরে অবরোধকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র রেকর্ড ৩.২ কোটি ট্রান্সফার ফি দিয়ে কেরালাকে জিকসনকে নিল ইস্টবেঙ্গল- রিপোর্ট ক্যাপ্টেন্সি এল না, চলে গেল ভাইস-অধিনায়ক, ডিভোর্স- হার্দিকের 'ব্ল্যাক থার্সডে' গড়পড়তা খেলে জায়গা পাচ্ছেন প্যায়ারেলালরা, ১০০ করেও বাদ অভিষেক, ক্ষোভ নেটিজেনদের কলকাতার ৫৮টি রাস্তার মোড়ে হকার নয়, ভেন্ডিং কমিটির রিপোর্ট কি লাগু হবে এবার? বিয়ের আগেই প্রেগন্যান্ট হন নাতাশা! তিন বার বিয়ে করেন হার্দিক,তবুও সংসার টিকলো না চোখ রাঙাচ্ছে নিম্নচাপ! ২১ শে জুলাইয়ের আগে বাংলার আবহাওয়া কেমন থাকবে? রেশন দুর্নীতি বিতর্ক অতীত! মুম্বইয়ে বিরাট দুর্গাপুজো আয়োজনের দায়িত্বে ঋতুপর্ণা

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.