বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Durga Puja 2022: পুজোর কয়েকটা দিন বাড়ির মহিলাদের ‘ছুটি’, সিংহ পরিবারের পুরুষরাই সামলান সব কাজ
দুর্গাপুজোয় সমস্ত কাজ থেকে বিরত থাকেন মহিলারা। প্রতীকী ছবি

Durga Puja 2022: পুজোর কয়েকটা দিন বাড়ির মহিলাদের ‘ছুটি’, সিংহ পরিবারের পুরুষরাই সামলান সব কাজ

  • মায়ের আবাহন থেকে শুরু করে বিসর্জন সবটাই বাড়ির সব কাজই সামলান পুরুষরা। আর পুজোর সময় বাড়ির মহিলারা ছুটি এবং আনন্দ উপভোগ করেন। সমস্ত কাজকর্ম থেকেই তারা বিরত থাকেন। বাড়ির জামাইরাও পুজোর সময় কাজে অংশগ্রহণ করেন।

রান্নাবান্না থেকে শুরু করে ঘরকন্নার যাবতীয় কাজ সাধারণত করে থাকেন মহিলারাই। এটাই যেন রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। আর দুর্গাপুজোর সময় মহিলাদের কাজ আরও বেড়ে যায়। তবে সেই রীতি ভেঙে দুর্গাপুজোর সময় বাড়ির সমস্ত কাজ থেকে বিরত থাকেন মহিলারা। এই কয়েকটা দিন মহিলাদের ছুটি থাকে। বছরের বছর পর বছর দুর্গাপুজোর সময় এই নিয়মই পালন করে আসছে হুগলির নালিকুলের সিংহ পরিবার। দুর্গাপুজোর কয়েকটা দিন রান্নাবান্না থেকে শুরু করে বাড়ি যাবতীয় কাজ সামলান পুরুষরা।

আরও পড়ুন: এখনও পুজোর কেনাকাটা হয়নি? তাহলে মনে রাখুন এই টিপস, ভুল এড়ান সহজেই

মায়ের আবাহন থেকে শুরু করে বিসর্জন সবটাই বাড়ির সব কাজই সামলান পুরুষরা। আর পুজোর সময় বাড়ির মহিলারা ছুটি এবং আনন্দ উপভোগ করেন। সমস্ত কাজকর্ম থেকেই তারা বিরত থাকেন। বাড়ির জামাইরাও পুজোর সময় কাজে অংশগ্রহণ করেন। প্রায় আড়াইশো বছরের পুরনো সিংহ বাড়ির এই পুজোর প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন এককড়িনাথ সিংহ। কথিত আছে তার পিতামহ কুল দেবতা রঘুনাথজির মন্দির তৈরি করেছিলেন। এককড়িনাথ সিংহ স্বপ্নাদেশ পেয়েছিলেন মহিষাসুরমর্দিনীর। স্বপ্নে তিনি মা দুর্গা তাকে দর্শন দিয়েছিলেন। তারপর থেকেই তিনি দুর্গাপুজোর প্রচলন করেন। প্রতিবছর রঘুনাথজির মন্দিরে শারদ উৎসবের আগে বিশেষ পুজো করা হয়। তারপরের দিন দুর্গা প্রতিমার কাঠামো পুজো হয়।

প্রতি বছর পুজোর মহাষষ্ঠী থেকে দশমী পর্যন্ত চলে বিভিন্ন ধরনের আয়োজন। ১৫০ কেজি চালের রান্না হয়। শুধুমাত্র নবমীতে ধুনো পোড়ানোর অনুষ্ঠানের কাজে বাড়ির মহিলারা অংশগ্রহণ করেন। তবে পুজোর সময় ফল কাটা থেকে শুরু করে পুজোর ভোগ রান্না, যাবতীয় আয়োজন করে থাকেন বাড়ির ছেলেরাই। এটাই এই পুজোর বৈশিষ্ট্য।

বন্ধ করুন