বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সরকারি আবাসনের ফ্ল্যাটে দেদার চুরি, ছাড় পেলেন না ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটও
তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।
তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

সরকারি আবাসনের ফ্ল্যাটে দেদার চুরি, ছাড় পেলেন না ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটও

  • ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াও তিনটি ফ্ল্যাট থেকে নগদ টাকা, গয়না নিয়ে চম্পট দিল চোরেরা।

বিচারকের বাড়িতে চুরির ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে। কারণ একদিকে সরকারি আবাসন অন্যদিকে সেখানে থাকেন ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। আর সেই ফ্ল্যাটেই চুরি হয়ে গেল। ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াও তিনটি ফ্ল্যাট থেকে নগদ টাকা, গয়না নিয়ে চম্পট দিল চোরেরা। এই ঘটনার বিচার হবে কেমনভাবে?‌ উঠেছে প্রশ্ন। আর তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে জলপাইগুড়িতে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, জলপাইগুড়ির বিডিও অফিস সংলগ্ন এলাকায় রাজবাড়ি‌পাড়া কম্পোজিট কমপ্লেক্স। এখানে থাকেন বিভিন্ন সরকারি আধিকারিক ও তাঁদের পরিবার। এখানেই থাকেন ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটও। সেখানেই চুরি‌র ঘটনা ঘটল। আবাসনের সবকটি ফ্ল্যাটের দরজার হ্যাসবোল আটকে দিয়ে তিনটি ফ্ল্যাট থেকে দেদার চুরি করে পালাল চোরেরা। সরকারি আবাসনে খোদ ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের বাড়িতে চুরির ঘটনায় অবাক হয়েছেন অনেকেই।

এই ঘটনার অভিযোগ দায়ের হতেই হাজির পুলিশ। তাঁরা তদন্তে নেমে এখনও কোনও কিনারা করতে পারেননি। এই সরকারি আবাসনের বাসিন্দা দেবব্রত সরকার। তিনি ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট। এবার পুজোর ছুটিতে পরিবার নিয়ে বেড়াতে গিয়েছেন। ফ্ল্যাট ফাঁকা থাকার সুযোগ নিয়ে ওই কমপ্লেক্সের ভিতরে ঢোকে চোরের দল। আলমারি ভেঙে নগদ টাকা ও সোনার গয়না সহ সবমিলিয়ে কয়েক লক্ষ টাকা‌র জিনিস লুঠ করে পালিয়েছে চোরেরা বলে পুলিশ সূত্রে খবর।

ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটের পাশাপাশি পারিজাত বসু এবং প্রীতম হালদার নামে দুই অফিসারের ফ্ল্যাটেও চুরির ঘটনা ঘটেছে। সবমিলিয়ে নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। তদন্তে নেমেছে জলপাইগুড়ি কোতোয়ালি থানার পুলিশ। এই চুরির ঘটনার নেপথ্যে পরিচিত কারও মদত রয়েছে বলে সন্দেহ করছে পুলিশ।

বন্ধ করুন