বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পাঁশকুড়ায় নির্মাণসামগ্রীর গুদামে টাইমবোমা!‌ তদন্তে বম্ব স্কোয়াড, আতঙ্ক
ঘটনাস্থলে বম্ব স্কোয়াড। ইনসেটে, সেই টাইমবোমা।
ঘটনাস্থলে বম্ব স্কোয়াড। ইনসেটে, সেই টাইমবোমা।

পাঁশকুড়ায় নির্মাণসামগ্রীর গুদামে টাইমবোমা!‌ তদন্তে বম্ব স্কোয়াড, আতঙ্ক

  • বৃহস্পতিবার সকালে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ল পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া থানার শেরহাটি বাজারে।

নির্মাণসামগ্রী বিক্রির দোকানের গুদামে টাইমবোমা!‌ জানাজানি হতেই বৃহস্পতিবার সকালে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ল পূর্ব মেদিনীপুর জেলার পাঁশকুড়া থানার শেরহাটি বাজারে। দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে গোটা দোকান চত্বর ঘিরে ফেললেন পুলিশ ও দমকল বিভাগের কর্মীরা। বসানো হল ব্যারিকেড। ততক্ষণে পিছু হটতে শুরু করেছে ভিড় করা উৎসুক গ্রামবাসীরা। খবর দেওয়া হল বম্ব স্কোয়াডে। সময় নষ্ট না করে কিছুক্ষণের মধ্যেই চলে এল তারা। সঙ্গে পুলিশ কুকুর।

একদিকে, বিস্ফোরক শনাক্তকরণের চেষ্টা চলছে, আরেকদিকে, জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে ওই দোকান ও গুদামের মালিক অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক কার্তিক গাঁতাইতের ছেলে রজতকে। তিনি জানান, ওই সময় তিনিই দোকানে ছিলেন এবং এদিন সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ তাঁর মোবাইলে একটি অপরিচিতি নম্বর থেকে ফোন আসে। গুদামে বোমা রাখা রয়েছে বলে ওই ফোনে তাঁকে জানানো হয়।

এদিকে, ততক্ষণে বিস্ফোরক শনাক্তকরণের কাজ অনেকটা এগিয়ে গিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, দুই পাশে প্লাস্টিকের পাইপ এবং মাঝে একটি ঘড়ি দিয়ে তৈরি করা হয়েছে সেটি। লাল, সবুজ ও কালো স্কচটেপ দিয়ে প্রতিটি বস্তু একে–অপরের সঙ্গে আটকানো ছিল। একটি রিমোট কন্ট্রোলের মতো দেখতে জিনিসের ওপর বসানো ছিল লাল আলো। তমলুকের মহকুমা পুলিশ আধিকারিক অতীশ বিশ্বাস জানান, বম্ব স্কোয়াডের বিশেষজ্ঞ টিম ভাল করে সেগুলি পর্যবেক্ষণে করছে। দেখা হচ্ছে তাতে বোমা তৈরির কোনও উপাদান আছে কিনা। এক যুবককে আটক করে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

দোকানের মালিক অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক কার্তিক গাঁতাইত পুলিশকে জানিয়েছে, এদিন সকালে দোকান থেকে প্রায় ১২ হাজার টাকার সামগ্রী কিনে নিয়ে যান শেখ আসানুল নামে স্থানীয় এক যুবক। এর আগেও অনেক জিনিস ধারে নিয়েছে সে। তাঁর সন্দেহ, এই ঘটনার পেছনে ওই যুবকই জড়িত। আসনুলকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। পুলিশের অনুমান, পূর্ব কোনও শত্রুতার জেরেই এই ঘটনা।

বন্ধ করুন