বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কোচবিহারে তৃণমূলের গোষ্ঠীসংঘর্ষ, আহতদের নিয়ে যাওয়ার পথে ভাঙচুর হল নিশ্চয় যান
মঙ্গলবার রাতে তুফানগঞ্জে ভাঙচুর হওয়া অ্যাম্বুল্যান্স
মঙ্গলবার রাতে তুফানগঞ্জে ভাঙচুর হওয়া অ্যাম্বুল্যান্স

কোচবিহারে তৃণমূলের গোষ্ঠীসংঘর্ষ, আহতদের নিয়ে যাওয়ার পথে ভাঙচুর হল নিশ্চয় যান

  • এদিনও সংঘর্ষের জেরে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতদের অ্যাম্বুল্যান্সে করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় অ্যাম্বুল্যান্সেও ভাঙচুর হয়।

ফের তৃণমূলের গোষ্ঠীসংঘর্ষে উত্তপ্ত হল কোচবিহারের প্রত্যন্ত তুফানগঞ্জ। শাসকদলের ২ গোষ্ঠীর সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল এলাকা। এমনকী ভাঙচুর হল অ্যাম্বুল্যান্সেও। 

তৃণমূল সূত্রের খবর, মঙ্গলবার বিকেলে স্থানীয় অঞ্চল সভাপতি ফারুখ মণ্ডলের বাড়িতে বৈঠক করে ফিরছিলেন কিছু তৃণমূল সমর্থক। তখন তাদের ওপর হামলা চালায় বিরোধী গোষ্ঠীর লোকেরা। এই নিয়ে জেলা সভাপতি পার্থপ্রতীম রায় ও উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ বেঁধে যায়। 

কোচবিহারের তুফানগঞ্জ রবীন্দ্রনাথবাবুর খাসতালুক বলে পরিচিত। এখানেই তাঁর বাড়ি। প্রাক্তন সিপিএম বিধায়ক তমসের আলিকে পরাজিত করে তুফানগঞ্জের দখল নেন তিনি। কিন্তু এখন সেখানে জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়ের অনুগামীরা দখল নেওয়ার চেষ্টা করছে। ফলে মাঝেমাঝেই অশান্তি বাঁধছে দুপক্ষের। 

এদিনও সংঘর্ষের জেরে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। আহতদের অ্যাম্বুল্যান্সে করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় অ্যাম্বুল্যান্সেও ভাঙচুর হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

লোকসভা নির্বাচনে কোচবিহারে হেরেছে তৃণমূল। এবার বিধানসভা নির্বাচনের আগে তাই জেলা সভাপতি বদলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাতেও কোচবিহারে হিংসাশ্রয়ী রাজনীতিতে কোনও ছেদ পড়েনি। 

 

বন্ধ করুন