বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তৃণমূলি পঞ্চায়েত সদস্যের আশ্রয়ে ছিল আসামিরা, দাবি রাজগঞ্জে নিহত কিশোরীর পরিবারের
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

তৃণমূলি পঞ্চায়েত সদস্যের আশ্রয়ে ছিল আসামিরা, দাবি রাজগঞ্জে নিহত কিশোরীর পরিবারের

  • অভিযোগের প্রেক্ষিতে তৃণমূলের প্রতিক্রিয়া। ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করছে পুলিশ। দোষী প্রত্যেকে শাস্তি পাবে।

জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জে কিশোরীকে গণধর্ষণ করে খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্যকর দাবি মৃতের পরিবারের। অভিযোগ, ঘটনায় অভিযুক্তদের আশ্রয় দিয়েছিলেন স্থানীয় তৃণমূলি পঞ্চায়েত সদস্য। সলিমউদ্দিন মহম্মদ নামে ওই পঞ্চায়েত সদস্যের অবিলম্বে গ্রেফতারি দাবি করেছে বিজেপি। এই নিয়ে সাবধানী মন্তব্য করেছে তৃণমূল। 

নিহত কিশোরীর পরিবারের দাবি, ওই ঘটনায় অভিযুক্তদের আশ্রয় দিয়েছিল সলিমউদ্দিন। এই মর্মে রাজগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে তারা। নাবালিকার পরিবারের অভিযোগ, শাসকদলের নেতা বলে তাঁকে বাঁচানোর চেষ্টা চলছে। 

মৃতার পরিবারের সঙ্গে রবিবার দেখা করে বিজেপির জলপাইগুড়ি জেলা নেতৃত্ব। এই ঘটনার সঠিক তদন্তের পাশাপাশি সলিমউদ্দিনের গ্রেফতারি দাবি করেন তাঁরা। বিজেপি নেতৃত্বের অভিযোগ, এলাকায় মাদক ও গাঁজার কারবার সহ একাধিক অপরাধে যুক্ত এই পঞ্চায়েত সদস্য। 

অভিযোগের প্রেক্ষিতে তৃণমূলের প্রতিক্রিয়া। ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করছে পুলিশ। দোষী প্রত্যেকে শাস্তি পাবে। 

গত ১০ অগাস্ট রাজগঞ্জের সন্ন্যাসীকাটা গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা ওই কিশোরী নিখোঁজ হয়। ২০ অগাস্ট রাজগঞ্জের প্রধানপাড়ার এরটি সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে তার দেহ উদ্ধার হয়। 

 

বন্ধ করুন