বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ভাঙড়ে গৃহবধূ খুনে অভিযুক্তদের লুকিয়ে রাখার অভিযোগ তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে
বধূর দেহ উদ্ধারের পর শ্বশুরবাড়ি ভাঙচুর করেন স্থানীয়রা। 
বধূর দেহ উদ্ধারের পর শ্বশুরবাড়ি ভাঙচুর করেন স্থানীয়রা। 

ভাঙড়ে গৃহবধূ খুনে অভিযুক্তদের লুকিয়ে রাখার অভিযোগ তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে

  • শনিবার ভাঙড়ের নাংলা গ্রামে হান্নান মোল্লার বাড়ি থেকে গৃহবধূ লিলুফার দেহ উদ্ধার হয়। বছর দশেক আগে ভাঙড়ের কচুয়া গ্রামের মহিদ্দিন মোল্লার মেয়ে লিলুফার সঙ্গে নাংলা গ্রামের হান্নান মোল্লার বিয়ে হয়।

ভাঙড়ে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের প্রতিবাদ করায় গৃহবধূকে খুনের অভিযোগ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। অভিযুক্তের ঘরবাড়ি ভাঙচুর করেন স্থানীয়রা। মৃতের নাম লিলুফা বিবি (৩০)। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে পুলিশ। ঘটনায় মৃতের স্বামীর বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তুলে সরব হয়েছেন পরিবারের লোকজন। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে ভাঙড়ের নাংলা গ্রামে।

শনিবার ভাঙড়ের নাংলা গ্রামে হান্নান মোল্লার বাড়ি থেকে গৃহবধূ লিলুফার দেহ উদ্ধার হয়। বছর দশেক আগে ভাঙড়ের কচুয়া গ্রামের মহিদ্দিন মোল্লার মেয়ে লিলুফার সঙ্গে নাংলা গ্রামের হান্নান মোল্লার বিয়ে হয়। তাদের দু’টি সন্তানও আছে। বিবাহের পর থেকেই গৃহবধূর উপরে লাগাতার অত‍্যাচার শারিরীক নির্যাতন চলতো বলে অভিযোগ। 

শনিবার সকালে ওই গৃহবধূ লিলুফার মৃত্যুর খবর প্রকাশ্যে আসে। লিলুফার বাপেরবাড়ির লোকজন এসে দেখেন, ঘরের মেঝেতে পড়ে আছে লিলুফার দেহ। তাদের দাবি, বালিশ চাপা দিয়ে খুন করা হয়েছে তাঁকে। মুহূর্তের মধ্যে এলাকার বাসিন্দাসহ লিলুফার বাপের বাড়ির লোকজন উত্তেজিত হয়ে ওঠে।পরিস্থিতি বেগতিক দেখেই আগেভাগেই বাড়ি ছেড়ে পালায় লিলুফার স্বামীসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা।

খবর পেয়ে তড়িঘড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছায় কাশীপুর থানার পুলিশ। উত্তেজিত জনতাকে বুঝিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায় তারা। খুনের অভিযোগে সরব জনতা অভিযুক্তদের শাস্তির দাবিতে আওয়াজ তোলেন। এর পাশাপাশি নাংলা গ্রামের তৃণমূল নেতা পিন্টু মোল্লার বিরুদ্ধে অভিযুক্তদের লুকিয়ে রাখার অভিযোগ তুলে তাঁর বাড়িতে গিয়ে বিক্ষোভ দেখান গ্রামবাসীরা। ঘরের ভিতরে ঢুকে চলে তল্লাশি। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

 

বন্ধ করুন