বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে ধান বিক্রির টাকা সরানোর অভিযোগ কৃষ্ণেন্দুর
কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী, ফাইল ছবি
কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী, ফাইল ছবি

তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে ধান বিক্রির টাকা সরানোর অভিযোগ কৃষ্ণেন্দুর

  • কৃষ্ণেন্দুর দাবি, স্থানীয় বেশ কয়েকটি রাষ্ট্রয়ত্ত্ব ও বেসরকারি ব্যাঙ্ক এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। অন্তত ৩ কোটি টাকা এভাবে তোলা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

ফের তৃণমূলের অন্দর থেকে উঠল দুর্নীতির অভিযোগ। এবার জেলা মালদা। আর অভিযোগকারী দলের প্রাক্তন মন্ত্রী কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী। সোমবার দুপুরে এক সাংবাদিক বৈঠকে দলেরই পঞ্চায়েত প্রধানের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীদের ধান বিক্রির টাকা তুলে নেওয়ার অভিযোগ করেছেন কৃষ্ণেন্দুবাবুর। 

ইংরেজ বাজার পুরসভার প্রাক্তন পুরপ্রধান কৃষ্ণেন্দুবাবু বলেন, ‘স্থানীয় কয়েকটি ব্যাঙ্ক, চালকল মালিকের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ইংরেজ বাজারের যদুপুর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান সাজ্জাদ আলি গ্রামবাসীদের ধান বিক্রির কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন।’

এই অভিযোগ করার সময় কৃষ্ণেন্দু নারায়ণের পাশে ছিলেন বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগী। তাঁদের একজন জানান, তাঁর অ্যাকাউন্টে একাধিকবার টাকা ঢুকলেও সেই টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য চেকবই, পাশবই বা এটিএম কার্ড কিছুই পাননি তিনি। এমনকী ভুয়ো ফোন নম্বর বসানো হয়েছে তাঁর ফোন নম্বরের জায়গায়। 

কৃষ্ণেন্দুর দাবি, স্থানীয় বেশ কয়েকটি রাষ্ট্রয়ত্ত্ব ও বেসরকারি ব্যাঙ্ক এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত। অন্তত ৩ কোটি টাকা এভাবে তোলা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সাজ্জাদ আলি। তিনি বলেন, আমার এরকম কোনও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নেই। গ্রামবাসীদের জিরো ব্যালান্স অ্যাকাউন্ট খুলে দিতে উদ্যোগী হয়েছিলাম বলে অমার বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগ করা হচ্ছে। অভিযোগ উঠলে তদন্ত হোক। আমার কোনও সমস্যা নেই। 

ঘটনায় মালদা জেলা তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মৌসম বেনজির নুর বলেন, এখনো কোনও লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। 

 

বন্ধ করুন