বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ডিজে বাজিয়ে চটুল নাচে ভাঙড়ে স্বাধীনতা দিবস পালন তৃণমূলের
ভাঙড়ে চলছে তৃণমূলের স্বাধীনতাদিবস উজ্জাপন। 
ভাঙড়ে চলছে তৃণমূলের স্বাধীনতাদিবস উজ্জাপন। 

ডিজে বাজিয়ে চটুল নাচে ভাঙড়ে স্বাধীনতা দিবস পালন তৃণমূলের

  • এই ঘটনায় হতবাক স্থানীদের একাংশ? তাঁরা প্রশ্ন করছেন, এ কোন সংস্কৃতি। স্বাধীনতা দিবসে দেশাত্মবোধক গান বাজিয়ে শহিদ স্মরণের বদলে চটুল গানের সঙ্গে নাচ মেনে নিতে পারছেন না অনেকেই।

স্বাধীনতা দিবসে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে ভোজপুরি গানের তালে উদ্দাম নাচ ভাঙড়ে। আয়োজক তৃণমূলের স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান মোদাস্সার হোসেন। রবিবার সন্ধ্যায় এই ছবিতে অবাক স্থানীয়রাও। শহিদ ও স্বাধীনতা সংগ্রামীদের স্মরণের এক কোন পন্থা? প্রশ্ন তুলছেন তাঁরাই।

রবিবার সন্ধ্যায়র পর ভাঙড়ের কাঁঠালিয়ার উজ্জ্বল সংঘের মাঠে আয়োজন হয় স্বাধীনতা দিবস উজ্জাপন অনুষ্ঠান। আয়োজক ছিলেন স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান মোদাস্সার হোসেন। সন্ধে নামতেই জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে সেখানে শুরু হয় ডিজে বাদন। হিন্দি - বাংলা গানের পাশাপাশি সেখানে ভোজপুরি গানের তালে নাচতে দেখা যায় যুবাদের। চটুল গানে উদ্দাম নাচের সময় না কারও মুখে ছিল মাস্ক, না ছিল সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের বালাই। মঞ্চে না উঠলেও আসেপাশে ঘোরাঘুরি করতে দেখা যায় মোদাস্সার হোসেনকে।

এই ঘটনায় হতবাক স্থানীদের একাংশ? তাঁরা প্রশ্ন করছেন, এ কোন সংস্কৃতি। স্বাধীনতা দিবসে দেশাত্মবোধক গান বাজিয়ে শহিদ স্মরণের বদলে চটুল গানের সঙ্গে নাচ মেনে নিতে পারছেন না অনেকেই। 

স্থানীয় এক বিজেপি নেতা বলেন, ‘এটাই তৃণমূলের সংস্কৃতি। যুবকদের উৎশৃঙ্খলতা শেখাচ্ছে তৃণমূল। এসে সমাজজীবনে মারাত্মক কুপ্রভাব পড়বে। যুবকদের সমর্থন পেতে এত নীচে নামতেই বাধে না তাদের।’ ওদিকে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা মোদাস্সার হোসেন বলেন, ‘আমি অনুষ্ঠানের আয়োজক নই। অনুষ্ঠান আয়োজন কেছে ক্লাবের ছেলেরা।’

 

বন্ধ করুন