বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > 'চিতাতেই সব শেষ,' রাজনৈতিক বিভেদ ভুলে বিজেপি নেতার বাবার দেহ সৎকার করল তৃণমূল
বিজেপি নেতা বাবার দেহ সৎকারে এগিয়ে এলেন তৃণমূল নেতৃত্ব  (প্রতীকী ছবি)
বিজেপি নেতা বাবার দেহ সৎকারে এগিয়ে এলেন তৃণমূল নেতৃত্ব  (প্রতীকী ছবি)

'চিতাতেই সব শেষ,' রাজনৈতিক বিভেদ ভুলে বিজেপি নেতার বাবার দেহ সৎকার করল তৃণমূল

  • সংকটের দিনে দলীয় কর্মীদের পাশে পাননি বলে স্বীকার করে নিয়েছেন পিতৃহারা বিজেপি নেতা

পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর থানার পাঁচড়া। সেখানেই বিজেপি নেতা নীতিশ বালার বাবা নলিনী বালা করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। এরপর তাঁর মৃত্যু হয়। কিন্তু করোনা আক্রান্তের দেহ সৎকারে এগিয়ে আসেননি অনেকেই।এনিয়ে হতাশ হয়ে পড়েছিলেন ওই বিজেপি নেতা। এমনকী দলের কাউকেও তিনি পাশে পাননি বলে তাঁর দাবি। দীর্ঘক্ষণ বাড়িতেই মৃতদেহ পড়েছিল। তবে সংকটের দিনে তিনি শ্মশান বন্ধু হিসাবে পাশে পেলেন তৃণমূলের নেতাদের, একাধিক জনপ্রতিনিধিকে। পাঁচড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান লালু হেমব্রম ও উপপ্রধান বিকাশ পাকড়ে একেবারে শ্মশানে দাঁড়িয়ে থেকে বিজেপি নেতার বাবার দেহ সৎকারের উদ্যোগ নেন। সংকটের দিনে এভাবে বিরোধী দলের লোকজনকে পাশে পেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন বিজেপি নেতা। 

লালু হেমব্রম বলেন, ‘বিজেপি কর্মীর বাবার দেহ সৎকারে কেউ এগিয়ে আসছেন না বলে আমরা জানতে পারি। করোনার আতঙ্কেই কেউ এগিয়ে আসতে চাননি। তবে এলাকায় আমাদের দলের কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে আমরা দেহ সৎকারের উদ্যোগ নিয়েছি।’ আর বাবকে হারানোর পর বিরোধী দলের নেতা কর্মীদের এভাবে পাশে পাবেন ভাবতেও পারেননি ওই বিজেপি নেতা। তিনি বলেন, ‘দলের কর্মীদের জানানো সত্ত্বেও তাঁরা কেউ আসেননি। বাবার শেষকৃত্যের জন্য পঞ্চায়েত প্রধানের সহায়তা চাই। তাঁরা সাড়া দিয়েছেন। তৃণমূল কর্মীদের কাছে আমি চিরদিন কৃৃতজ্ঞ থাকব।’ মাঠে, ময়দানে, রাজনীতির আঙিনায় তীব্র বিরোধ উভয়পক্ষের মধ্যে। কিন্তু সংকটের দিনে মানবিকতার হাত বাড়িয়ে দিলেন বিরোধী দলের নেতা কর্মীরাই।

 

বন্ধ করুন