বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > রুটির জায়গায় মদ বিক্রি কেন? বলতেই হোটেল মালিকের 'মার', আঙুল কাটল তৃণমূলকর্মীর
তৃণমূল কর্মীর আঙ্গুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
তৃণমূল কর্মীর আঙ্গুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

রুটির জায়গায় মদ বিক্রি কেন? বলতেই হোটেল মালিকের 'মার', আঙুল কাটল তৃণমূলকর্মীর

  • আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীদের নাম বিকাশ রানা এবং চন্দন ঘোষ। তাঁদের দাবি, গত বৃহস্পতিবার রাতে ওই হোটেলে তারা রুটি কিনতে গিয়েছিলেন । কিন্তু তাঁদের রেখে অন্য গ্রাহকদের মদ দিচ্ছিলেন হোটেল মালিক।

মদ কিনতে গিয়ে বচসা। আর তার জেরে দুই তৃণমূল কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠল হোটেল মালিকের বিরুদ্ধে। বঁটির আঘাতে এক তৃণমূল কর্মীর হাতের আঙুল কেটে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ঘটনাটি হুগলির গোঘাটের। এই অভিযোগে পুলিশ হোটেলের মালিক অসিত দে এবং তাঁর ছেলে পিরু দে’কে গ্রেফতার করেছে।

আক্রান্ত তৃণমূল কর্মীদের নাম বিকাশ রানা এবং চন্দন ঘোষ। তাঁরা মদ কেনার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাঁদের দাবি, গত বৃহস্পতিবার রাতে ওই হোটেলে রুটি কিনতে গিয়েছিলেন। কিন্তু অন্য গ্রাহকদের মদ দিচ্ছিলেন হোটেল মালিক। প্রতিবাদ জানাতেই হোটেল মালিকের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। আর তারপরেই হাতে বঁটি নিয়ে হোটেল মালিক এবং তাঁর ছেলে তাঁদের উপর চড়াও হয় বলে অভিযোগ। 

অভিযোগ, হোটেল মালিক তৃণমূল কর্মীদের মধ্যে একজনের মাথায় আঘাত করেন এবং অন্যজনের আঙুল কেটে দেন বলে অভিযোগ। তৃণমূলকর্মী বিকাশ রানার বক্তব্য, ‘আমাদের পরে যে সমস্ত গ্রাহক গিয়েছিলেন, তাঁদেরকে হোটেল মালিক মদ দিচ্ছিলেন। কেন সেখানে মদের কারবার করা হচ্ছে, তাই তা নিয়ে আমরা প্রশ্ন করেছিলাম। আমরা প্রতিবাদ করে বলেছিলাম মদ আগে না খাবার আগে? তা বলতেই হোটেল মালিকের সঙ্গে আমাদের বচসা বাঁধে। হোটেলমালিক বাবা এবং ছেলে আমাদের বটি দিয়ে হামলা করে। আমার আঙুল কেটে যায়।'

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করে পাল্টা তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন হোটেল মালিক। তাঁর অভিযোগ, তৃণমূলকর্মীরা বিনা পয়সায় মদ খেতে চেয়েছিলেন। তা না দেওয়ায় তাঁরা তাঁকে মালিককে মারধর করেন। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে হোটেলে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় পুলিশ। এরপর রাতে হোটেলে বন্ধ করে দেয় পুলিশ। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

বন্ধ করুন