বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দলের ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধেই মাটি পাচারে মদত দেওয়ার অভিযোগে সরব তৃণমূল বিধায়ক
রতুয়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায় (ডান দিকে)।
রতুয়ার তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায় (ডান দিকে)।

দলের ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধেই মাটি পাচারে মদত দেওয়ার অভিযোগে সরব তৃণমূল বিধায়ক

  • সমরবাবুর দাবি, রতুয়া ১ নম্বর ব্লকে ফুলহর নদীর মাটি পাচারে মদত দিচ্ছেন দলের ব্লক সভাপতি ফজলুল হক। এরা আসলে বিজেপির লোক। দিনে দুপুরে নদীর পাড়ের মাটি কেটে বিক্রি করে দিচ্ছে দুষ্কৃতীরা।

এবার দলেরই ব্লক সভাপতির বিরুদ্ধেই মাটি পাচারে যুক্ত থাকার অভিযোগ তুলে সরব হলেন তৃণমূল বিধায়ক। মালদার রতুয়ার তৃণমূল বিধায়ক সমর মুখোপাধ্যায়ের দাবি, মাটিপাচারকারীদের মদত দিচ্ছেন দলের রতুয়া ১ নম্বর ব্লক সভাপতি ফজলুল হক ও রতুয়া থানার আইসি সুবীর কর্মকার। বিজেপির দাবি, সব জায়গার মতো এখানেই মাটি পাচারের বখরা নিয়ে তৃণমূলের অন্দরে শুরু হয়েছে কোন্দল।

সমরবাবুর দাবি, রতুয়া ১ নম্বর ব্লকে ফুলহর নদীর মাটি পাচারে মদত দিচ্ছেন দলের ব্লক সভাপতি ফজলুল হক। এরা আসলে বিজেপির লোক। দিনে দুপুরে নদীর পাড়ের মাটি কেটে বিক্রি করে দিচ্ছে দুষ্কৃতীরা। যার জেরে ফুলহরে ভাঙনের আশঙ্কা বাড়ছে। ওদিকে পাচার হওয়া মাটি দিয়ে বেআইনিভাবে ভরাট করা হচ্ছে পুকুর। এই মাটিপাচারকারীদের একদিকে যেমন মদত দিচ্ছেন ফজলুল হক তেমনই তাদের পাশে রয়েছেন রতুয়া থানার আইসি সুবীর কর্মকার। বলে রাখি, গত মাসেও পুলিশের বিরুদ্ধে একই রকম অভিযোগ করেছিলেন সমরবাবু।

দলের বিধায়কের অভিযোগ নিয়ে তৃণমূলের মালদা জেলা সভাপতি আবদুল রহিম বক্সি বলেন, ‘বিধায়ক যখন বলছেন তখন তার মধ্যে সত্যতা থাকতে পারে। তবে প্রকাশ্যে কেন তিনি এসব কথা বলছেন সেটা দেখতে হবে।’

ফজলুল সাহেব বলেন, ‘আমি একজন শিক্ষক। আমার বিরুদ্ধে এই ধরণের অভিযোগ অবমাননাকর। বিধায়ক প্রবীণ মানুষ। উনি কেন এসব অভিযোগ করছেন জানি না।’ এব্যাপারে আইসির প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

 

বন্ধ করুন