বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > সিবিআইয়ের মুখোমুখি হলেন না মানস ভুঁইয়া, অগ্রাধিকার দিলেন মানুষের কাজেই
মানস ভুঁইয়া। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)
মানস ভুঁইয়া। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)

সিবিআইয়ের মুখোমুখি হলেন না মানস ভুঁইয়া, অগ্রাধিকার দিলেন মানুষের কাজেই

  • আজ দুপুর ১২টায় মানস ভুঁইয়ার হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে।

সিবিআই দফতরে গেলেন না রাজ্যের মন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়ক মানস ভুঁইয়া। নাগাড়ে বৃষ্টির জেরে তাঁর কেন্দ্রে বানভাসী অবস্থা। তাই মানুষের স্বার্থই আগে দেখতে হবে। পশ্চিম মেদিনীপুরের সবংয়ে এখন বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সে কথা জানিয়ে দিয়েছেন তিনি সিবিআই আধিকারিকদের। আর তাই তিনি হাজিরা দিতে পারছেন না। আজ দুপুর ১২টায় মানস ভুঁইয়ার হাজিরা দেওয়ার কথা ছিল সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে।

ভুয়ো অর্থলগ্নি সংস্থার সঙ্গে মানবসবাবুর নাম জড়িয়ে যায়। এমনকী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেও ডেকে পাঠিয়েছিল সিবিআই। পার্থবাবুও সিবিআই দফতরে যাননি। তবে ক্যামাক স্ট্রিটের শিল্পভবনে গিয়ে সিবিআই আধিকারিকরা তাঁকে দু’‌ঘণ্টা জেরা করেন। প্রাকৃতিক দুর্যোগে মানস ভুঁইয়ার কিছু করার নেই। এই মেঘভাঙা বৃষ্টিতে তিনি পশ্চিম মেদিনীপুর থেকে কলকাতায় আসতে পারবেন না। কারণ চারিদিকে জল জমে রয়েছে। ফলে আসা সম্ভব নয়।

মানস ভুঁইঞাকে নতুন করে জেরা করতে চেয়েছিল সিবিআই। ১৯ সেপ্টেম্বর তাঁকে নোটিশও পাঠানো হয়। কিন্তু এলাকার বিধায়ক হিসাবে মানুষের পাশে দাঁড়ানোকেই অগ্রাধিকার দিয়েছেন বিধায়ক মানস ভুঁইয়া। তাই বানভাসী পরিস্থিতিতে তিনি আসতে পারবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। সূত্রের খবর, আইকোরের অনুষ্ঠান মঞ্চে মানসবাবুকে দেখা গিয়েছিল।

উল্লেখ্য, রবিবার মাঝরাত থেকে মেঘভাঙা বৃষ্টিতে শহর থেকে জেলা ভেসে গিয়েছে। আর সবংয়ে রীতিমতো বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। সুতরাং সেখান থেকে কলকাতায় আসা সম্ভব নয়। সিবিআই এই খবর পেয়ে খানিকটা ব্যাকফুটে চলে গিয়েছে। তবে পরবর্তী কবে তাঁকে জেরা করা হবে তা সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়নি।

বন্ধ করুন