বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > টিকা প্রাপকদের তালিকার প্রথমেই তৃণমূল বিধায়ক, তুমুল বির্তকে সরল নাম
টিকা প্রাপকদের তালিকার প্রথমেই তৃণমূল বিধায়ক, তুমুল বির্তকে সরল নাম। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)
টিকা প্রাপকদের তালিকার প্রথমেই তৃণমূল বিধায়ক, তুমুল বির্তকে সরল নাম। (ফাইল ছবি, সৌজন্য ফেসবুক)

টিকা প্রাপকদের তালিকার প্রথমেই তৃণমূল বিধায়ক, তুমুল বির্তকে সরল নাম

  • বিধায়কের দাবি, তিনি ডক্টরেট হওয়ায় ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে।

টিকা প্রাপকদের তালিকায় প্রথমেই নাম তৃণমূল কংগ্রেস বিধায়কের নাম! তা নিয়েই দেশজুড়ে টিকাকরণ প্রক্রিয়া শুরুর দিন আলিপরদুয়ারে চরমে উঠল বিতর্ক। তৃণমূলের দাবি, ভুূলবশত বিধায়কের নাম তালিকায় উঠে গিয়েছিল। যদিও সেই যুক্তি মানতে নারাজ বিজেপি। শেষপর্যন্ত অবশ্য টিকা প্রাপকদের তালিকা থেকে সৌরভের নাম সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

শনিবার আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালের টিকা প্রাপকদের তালিকা তৈরি করা হয়েছিল, তাতে প্রথমেই ছিলেন আলিপুুরদুয়ারের তৃণমূল বিধায়ক সৌরভ চক্রবর্তী। বিষয়টি নজরে আসতেই তুমুল বিতর্ক শুরু হয়। বিজেপির অভিযোগ, টিকাকরণরের ক্ষেত্রেও দলের লোকেদের সুবিধা পাইয়ে দিচ্ছে তৃণমূল সরকার। আলিপুরদুয়ার বিজেপির জেলা কমিটির সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা বলেন, ‘বিধায়কের ডক্টরেট উপাধি থাকলেও তিনি চিকিৎসক নন। তা সত্ত্বেও মানুষের সঙ্গে নিশ্চয়ই প্রতারণা করে প্রথম টিকা পাওয়ার চেষ্টা করছিলেন বিধায়ক। সেই খবর জনসমক্ষে আসার পরই মানুষের প্রশ্নের মুখ পড়েছে তৃণমূল এবং সৌরভ।’

যদিও বিজেপির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন সৌরভ। তিনি বলেন, ‘আমার যেহেতু পি.এইচডি আছে এবং জেলা হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান, সেজন্য নির্ঘাত জেলা স্বাস্থ্য বিভাগে কোনও ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। আমি যখনই জানতে পেরেছি যে স্বাস্থ্যকর্মীদের তালিকায় আমার নাম আছে, তখনই জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি এবং টিকা নিতে অস্বীকার করেছি। টিকাকরণ প্রক্রিয়া খতিয়ে দেখতে আমি আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে আছি।’

বিষয়টি নিয়ে জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক গিরিশচন্দ্র বেরার সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে হাসপাতালের এক চিকিৎসক বলেন, ‘রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান হিসেবে বিধায়কের নাম তালিকায় চলে এসেছিল। তিনি ডক্টর চক্রবর্তী লেখেন। স্বাস্থ্য বিভাগের খতিয়ে দেখা উচিত ছিল।’

তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের তরফেও একই দাবি করা হয়েছে। দলের মুখপাত্র তাপস রায় বলেন, ‘মানুষ মাত্রই ভুল করেন। এমন ভাব করা হচ্ছে যেন বিজেপির নেতারা কোনও ভুল করেন না এবং তাঁরা সর্বদা ঠিক হন। সৌরভই নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেওয়ায় ওখানেই বিষয়টিতে ইতি পড়ে গিয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্টভাবে বলে দিয়েছেন, শুধুমাত্র স্বাস্থ্যকর্মীরাই টিকা পাবেন।’

বন্ধ করুন