বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > প্রশান্ত কিশোরের সংস্থার বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিদ্রোহ ঘোষণা তৃণমূল বিধায়কের
'বাত বিহার কি' অভিযানের ঘোষণার সাংবাদিক বৈঠকে প্রশান্ত কিশোর।
'বাত বিহার কি' অভিযানের ঘোষণার সাংবাদিক বৈঠকে প্রশান্ত কিশোর।

প্রশান্ত কিশোরের সংস্থার বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিদ্রোহ ঘোষণা তৃণমূল বিধায়কের

  • এখানেই শেষ নয়, এদিন তাঁর দলীয় কার্যালয় থেকে তৃণমূলের পতাকা খুলে ফেলেন মিহির গোস্বামী।

প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা IPAC-এর বিরুদ্ধে সরাসরি বিদ্রোহ ঘোষণা করলেন তৃণমূল বিধায়ক মিহির গোস্বামী। কোচবিহার দক্ষিণের বিধায়ক শুক্রবার সংবাদমাধ্যমের সামনে বলেন, ‘ঠিকাদার সংস্থাকে দিয়ে দল চালালে কখনও দলের ভাল হয় না।’

দিন কয়েক আগেই দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে যাবতীয় পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন মিহিরবাবু। সঙ্গে বলেন, ইচ্ছা করলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে বিধায়ক পদ থেকেও অব্যহতি দিতে পারেন। জানিয়েছিলেন দলের সাধারণ কর্মী হিসাবে কাজ করতে চান তিনি। 

এর শুক্রবার ফের বোমা ফাটান মিহিরবাবু। বলেন, সংগঠনের কাজ সংগঠনের কর্মীদেরই করা উচিত। IPAC নামক কোনও কন্ট্রাক্টর সংস্থা যদি দল পরিচালনা করার ক্ষেত্রে নির্দেশ দেয় তাহলে দলের ভাল হয় না।

এখানেই শেষ নয়, এদিন তাঁর দলীয় কার্যালয় থেকে তৃণমূলের পতাকা খুলে ফেলেন মিহির গোস্বামী। তার পর থেকেই শুরু হয়েছে জল্পনা। তবে কি আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী হতে চলেছেন তিনি। ব্যাপারে যদিও কোনও মন্তব্য করেননি বিধায়ক। 

বলে রাখি, লোকসভা নির্বাচনের পর প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা IPAC-কে দল পরিচালনার জন্য নিয়োগ করে তৃণমূল। তার পর থেকেই তৃণমূলের বিভিন্ন অনুষ্ঠান বকলমে আয়োজন করতে শুরু করে এই সংস্থা। যাতে যার পর নাই রুষ্ট তৃণমূল নেতাদের একাংশ। তাদের দাবি, দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনের অভিজ্ঞতার পর অন্যের নির্দেশে কাজ করতে অপমানিত বোধ করছেন তাঁরা। এই নিয়ে ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ করলেও এতদিন নাম করে প্রকাশ্যে কথা বলেননি কেউ। এবার সেই বোমাটা ফাটালেন মিহিরবাবু।

 

বন্ধ করুন