বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > আবু তাহের টাকার হাঙর-জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে সরব তৃণমূলেরই প্রাক্তন পুরপ্রধান
নীলরতন আঢ্য। ফাইল ছবি 
নীলরতন আঢ্য। ফাইল ছবি 

আবু তাহের টাকার হাঙর-জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে সরব তৃণমূলেরই প্রাক্তন পুরপ্রধান

  • মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল সভাপতি আবু তাহেরের বিরুদ্ধে একের পর এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছেন নীলরতনবাবু। বলেন, ‘আবু তাহের টাকার হাঙর। গোটা বহরমপুর শহর থেকে টাকা তুলছে।

জিতেন্দ্র তিওয়ারির চিঠি প্রকাশ্যে আসার দিনই আরও এক বিস্ফোরণ তৃণমূলে। সোমবার বিকেলে দলের জেলা সভাপতির বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বিস্ফোরক সব অভিযোগ করলেন বহরমপুরের প্রাক্তন পুরপ্রধান নীরতন আঢ্য। তাঁর দাবি, দুর্নীতিতে নিমজ্জিত মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল সভাপতি আবু তাহের। বিরোধিতায় করায় তাঁকে দলে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি। 

২০১৬ সালে শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলে যোগ দেন নীলরতনবাবু। সোমবার বিকেলে এক সাংবাদিক বৈঠকে তিনি দাবি করেন, গত ২ বছর ধরে তাঁকে দলীয় কোনও অনুষ্ঠানে ডাকা হয় না। পার্টি অফিসের দখল নিয়েছে আবু তাহেরের বাহিনী। তারাই তাঁকে কোণঠাসা করে রেখেছে। 

মুর্শিদাবাদ জেলা তৃণমূল সভাপতি আবু তাহেরের বিরুদ্ধে একের পর এক চাঞ্চল্যকর অভিযোগ করেছেন নীলরতনবাবু। বলেন, ‘আবু তাহের টাকার হাঙর। গোটা বহরমপুর শহর থেকে টাকা তুলছে। বেআইনি নির্মাণ থেকে মাসিক তোলা আদায় কোনও কিছুই বাদ দেননি। আমি তার বিরোধিতা করায় আমাকে দলে গুরুত্বহীন করে দিয়েছেন।’

নীলরতনবাবুর দাবি, তাঁর সঙ্গে কংগ্রেসের সঙ্গে যোগ রেখে চলার অভিযোগে সরব হয়েছে তৃণমূলের একাংশ। তিনি বলেন, আমি ৫০ বছরের বেশি সময় অধীর চৌধুরীর সঙ্গে রাজনীতি করেছি। তৃণমূলে যোগ দিয়েছি বলে কি তাঁর সঙ্গে ব্যক্তিগত সম্পর্ক ত্যাগ করবো? তাঁর দাবি, কে সত্যি কথা বলছে তার জবাব আগামী নির্বাচনে বহরমপুরের মানুষ দেবেন। 

অভিযোগ অস্বীকার করে জেলা তৃণমূল সভাপতি আবু তাহের বলেন, ‘নীলরতনবাবু দলের সঙ্গে গত ২ বছর ধরে কোনও যোগাযোগ রাখেন না। উনি কেন এসব কথা বলছেন জানি না। আমার বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ তো এর আগে কেউ করেননি।’

 

বন্ধ করুন