বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বিশেষ ট্রেনের দাবি উঠল তৃণমূলের অন্দরে, ২১ জুলাই সমাবেশের জের

বিশেষ ট্রেনের দাবি উঠল তৃণমূলের অন্দরে, ২১ জুলাই সমাবেশের জের

২১ জুলাই এবার বড় করে হবে কলকাতার ধর্মতলায়। (ছবি, সৌজন্যে এএনআই)

তৃণমূল কংগএস সূত্রে খবর, মূলত তিস্তা–তোর্সা, কাঞ্চনকন্যা, পদাতিক, সরাইঘাট এবং উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেসকেই কলকাতায় লোক নিয়ে যাওয়ার জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে। ১৭ জুলাই থেকে আলিপুরদুয়ার জংশন স্টেশনের সামনে দলের ক্যাম্প অফিস খুলবেন তৃণমূল নেতারা।

তৃণমূল কংগ্রেস সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২১ জুলাই এবার বড় করে হবে কলকাতার ধর্মতলায়। এই সিদ্ধান্তের সঙ্গেই প্রতিটি জেলা থেকে বিপুল পরিমাণ মানুষকে কলকাতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা করা হয়েছে। তার মধ্যে আলিপুরদুয়ার থেকে কুড়ি হাজার লোক নিয়ে আসার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে জেলা তৃণমূল কংগ্রেস। এই বিপুল সংখ্যক লোক নিয়ে যেতে গেলে বিশেষ ট্রেনের প্রয়োজন। এখন এই ব্যবস্থার দাবি উঠেছে।

কেন এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে?‌ সূত্রের খবর, গত লোকসভা এবং বিধানসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গ থেকে অনেক আসনে জেতে বিজেপি। তার পর থেকে বিজেপির সাংসদ–বিধায়করা একাধিকবার উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার দাবি তুলেছে। এই পরিস্থিতিতে ধর্মতলার সমাবেশে উত্তরবঙ্গকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। উত্তরবঙ্গের জেলাগুলি থেকে যত বেশি সম্ভব লোক নিয়ে আসার কথা বলা হয়েছে।

ঠিক কী বলছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেতা?‌ তৃণমূল কংগ্রেসের আলিপুরদুয়ারের জেলা সভাপতি প্রকাশ চিক বরাইক বলেন, ‘‌কলকাতার সমাবেশের প্রস্তুতি বৈঠক হবে। এই জেলা থেকে আমরা কুড়ি হাজার লোক কলকাতায় নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছি। তারই প্রস্তুতি নিতে জেলার সব নেতাদের বলা হয়েছে। কলকাতার সমাবেশ নিয়ে বুথ স্তর পর্যন্ত আমাদের প্রচার চলবে।’‌ তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে খবর, মূলত তিস্তা–তোর্সা, কাঞ্চনকন্যা, পদাতিক, সরাইঘাট এবং উত্তরবঙ্গ এক্সপ্রেসকেই কলকাতায় লোক নিয়ে যাওয়ার জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে। ১৭ জুলাই থেকে আলিপুরদুয়ার জংশন স্টেশনের সামনে দলের ক্যাম্প অফিস খুলবেন তৃণমূল নেতারা।

ঠিক কী দাবি উঠেছে?‌ জানা গিয়েছে, কলকাতায় এত লোক নিয়ে যাওয়ার জন্য বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থার দাবি উঠেছে। কারণ শুধু কলকাতাগামী পাঁচটি ট্রেনের উপর ভরসা করলে সমাবেশে কুড়ি হাজার লোক নিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়ে উঠবে না। এই জেলা থেকে কত লোক এল দলের শীর্ষ নেতৃত্ব তা নজর রাখবেন। তাই আলিপুরদুয়ার থেকে বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা করা দরকার।

বন্ধ করুন