বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পাখির চোখ পঞ্চায়েতে, মমতার শপথের বর্ষপূর্তি থেকে ফের পাড়ায়-পাড়ায় যাবে তৃণমূল
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএনআই)
 (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে এএনআই)

পাখির চোখ পঞ্চায়েতে, মমতার শপথের বর্ষপূর্তি থেকে ফের পাড়ায়-পাড়ায় যাবে তৃণমূল

  • ৫ মে দলীয় এই কর্মসূচির পাশাপাশি শুরু হয়ে যাচ্ছে ‘‌পাড়ায় সমাধান’‌ কর্মসূচি। এরপরই আছে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি। তবে এই দুই–ই প্রশাসনিক কর্মসূচি।

‌আগামী বছর পঞ্চায়েত ভোট। তৃতীয় বার ক্ষমতায় আসার পর আগামী ৫ মে হচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রথম বর্ষপূর্তি। গত বছর সেদিনই শপথ নিয়েছিলেন মমতা। সেই বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এবার পাড়ায় পাড়ায় জনসংযোগ কর্মসূচিতে নামছে তৃণমূল। পঞ্চায়েত স্তরে তৃণমূল সরকারের প্রতি আস্থা যাতে অটুট থাকে, সেই লক্ষ্যেই এবার নামছে ঘাসফুল শিবির।

গত বিধানসভা ভোটের আগে ‘‌দিদিকে বলো’‌ কর্মসূচি রাজ্যের মানুষের কাছে খুবই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছিল বলে দাবি তৃণমূলের। তৃণমূল সূত্রে খবর, সাধারণ মানুষের অভাব, অভিযোগের কথা জানতে ফের এই ধরনের কর্মসূচি আনতে চলেছে তৃণমূল। সাধারণ মানুষের সঙ্গে যোগাযোগের মাধ্যমকে আরও নিবিড় করে তুলতেই এই ধরনের জনসংযোগ কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে বলে দাবি ঘাসফুল শিবিরের। 

৫ মে থেকে এই ধরনের কর্মসূচি শুরু হবে বলে সূত্রের খবর।  তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে এই ধরনের কর্মসূচির সূচনা করবেন বলে জানা যাচ্ছে। কিছুদিন আগে উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘‌দিদিকে বলো’‌–এর মতো এই ধরনের কর্মসূচি ফের চালু করার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। দলের মধ্যে দুর্নীতিকে যে তিনি কোনওভাবেই বরদাস্ত করবেন না, সেই বার্তা দিতেই এই ধরনের কর্মসূচির কথা জানিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী।

সম্প্রতি বগটুই কাণ্ড, হাঁসখালি কাণ্ডের মতো ঘটনা সামনে আসার পর সতর্ক হয়ে গিয়েছে তৃণমূল নেতৃত্ব। পঞ্চায়েত ভোটের আগে দলের কোনও নেতার বিরুদ্ধে যদি দুর্নীতির অভিযোগ আসে, তা যে বরদাস্ত করা হবে না, সেকথা জানিয়ে দিয়েছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। এই পরিস্থিতিতে দলের মধ্যে জনসংযোগ কর্মসূচি ফের শুরু হলে মানুষের কাছে তৃণমূলের ভাবমূর্তি কিছুটা হলেও পুনরুদ্ধার করা যাবে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। উল্লেখ্য, ৫ মে দলীয় এই কর্মসূচির পাশাপাশি শুরু হয়ে যাচ্ছে ‘‌পাড়ায় সমাধান’‌ কর্মসূচি। এরপরই আছে দুয়ারে সরকার কর্মসূচি। তবে এই দুই–ই প্রশাসনিক কর্মসূচি।

বন্ধ করুন