বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দলের মহিলা কর্মাধ্যক্ষকে পঞ্চায়েত সমিতি থেকে চুলের মুঠি ধরে বার করে দিল তৃণমূলই
আক্রান্ত পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও কর্মাধ্যক্ষরা। 
আক্রান্ত পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি ও কর্মাধ্যক্ষরা। 

দলের মহিলা কর্মাধ্যক্ষকে পঞ্চায়েত সমিতি থেকে চুলের মুঠি ধরে বার করে দিল তৃণমূলই

  • শ্যামলীদেবী সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘কয়েকজন ছেলে আমার ওপর আক্রমণ করল। ১৯৯৮ সাল থেকে তৃণমূল করি। বহুবার আক্রান্ত হয়েছি। ঘরছাড়া হয়েছি। কিন্তু দলের লোকের হাতে মার খাবো একথা কখনো ভাবিনি।

তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত সমিতিতে ঢুকে তৃণমূলেরই সভাপতিকে মারধরের অভিযোগ দলের অপর গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সোমবার ধুন্ধুমার বাঁধে হুগলির গোঘাট ১ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতিতে। সভাপতিতে বাঁচাতে গিয়ে আক্রান্ত হন দলেরই ২ মহিলা কর্মাধ্যক্ষ। চুলের মুঠি ধরে পঞ্চায়েত সমিতির বাইরে বার করে দেওয়া হয় তাঁদের। তার পর একজনের প্রশ্ন, মহিলা মুখ্যমন্ত্রীর জমানায় রাজ্যে এই কি নারী নিরাপত্তার চেহারা?

গোঘাট ১ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মনোরঞ্জন পালের অভিযোগ, সোমবার প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক মানস মজুমদারের লোকজন পঞ্চায়েত সমিতিতে ঢুকে তাঁকে মারধর করে। তাঁকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন ২ মহিলা কর্মাধ্যক্ষ শ্যামলী ঘোষ ও ময়না বাগ। অভিযোগ, তাঁদের চুলের মুঠি ধরে পঞ্চায়েত সমিতির বাইরে বার করে দেয় তৃণমূলি দুষ্কৃতীরা।

শ্যামলীদেবী সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘কয়েকজন ছেলে আমার ওপর আক্রমণ করল। ১৯৯৮ সাল থেকে তৃণমূল করি। বহুবার আক্রান্ত হয়েছি। ঘরছাড়া হয়েছি। কিন্তু দলের লোকের হাতে মার খাবো একথা কখনো ভাবিনি। একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রীর শাসনে মহিলাদের নিরাপত্তা কোথায়?’

এর পর গোঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন আক্রান্তরা। এব্যাপারে অভিযুক্ত মানস মজুমদারের প্রতিক্রিয়া মেলেনি।

 

বন্ধ করুন