বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পিকনিক থেকে ফিরে ফেসবুকে 'বিদায়' পোস্ট, TMC যুবনেতার দেহ উদ্ধারে উঠছে প্রশ্ন
মৃত্যুর আগে ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছিলেন, 'ফিরিবার পথ নাহি, যদি দূর হতে দেখো আমায়, বন্ধু বিদায়।' (ছবি সৌজন্যে ফেসবুক)

পিকনিক থেকে ফিরে ফেসবুকে 'বিদায়' পোস্ট, TMC যুবনেতার দেহ উদ্ধারে উঠছে প্রশ্ন

  • অন্য কোনও কারণ রয়েছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ফেসবুক পোস্টে বিদায় জানিয়ে 'আত্মঘাতী' হলেন উত্তর ২৪ পরগনা নৈহাটির যুব তৃণমূল নেতা। বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে পিকনিক সেরে বাড়ি ফিরেছিলেন তিনি। তারপর তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মৃত যুব তৃণমূল নেতার নাম সৌম্যকান্ত বিশ্বাস। মৃত্যুর আগে ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছিলেন, 'ফিরিবার পথ নাহি, যদি দূর হতে দেখো আমায়, বন্ধু বিদায়।' প্রাথমিকভাবে এই ঘটনাকে পুলিশ আত্মহত্যা বলে মনে করছে। তবে অন্য কোনও কারণ রয়েছে কিনা, তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

ওই যুব তৃণমূল নেতার বাড়ি নৈহাটি পুরসভার অন্তর্গত শ্যামসুন্দরী এলাকায়। বাড়ির সদস্যরা জানাচ্ছেন, রবিবার বন্ধুদের সঙ্গে পিকনিকে গিয়েছিলেন সৌম্যকান্ত। বাড়ি ফেরার পর সকলের সঙ্গেই ভালোভাবে কথা বলেছেন। তাঁর ব্যবহারে কোনও পরিবর্তন লক্ষ্য করেননি পরিবারের সদস্যরা। এরপরে তিনি নিজের ঘরে চলে যান। তাঁর বন্ধু-বান্ধবদের দাবি, তিনি ফেসবুকে ওই পোস্ট করেছিলেন রবিবার সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ। সৌম্যকান্তর এই ধরনের পোস্ট দেখে বন্ধুবান্ধবরা লাগাতার ফোন করতে শুরু করেন। কিন্তু কোনও উত্তর না পাওয়ায় তাঁরা সৌম্যর বাড়িতে ফোন করে বিষয়টি জানার চেষ্টা করেন। এরপরে পরিবারের লোকেরা ঘরে গিয়ে তাঁর ঝুলন্ত দেহ দেখতে পান। খবর পাওয়ার পরে বন্ধু-বান্ধবরাও ছুটে আসেন সৌম্যর বাড়িতে। তড়িঘড়ি তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

পরিবারের লোকেরা বুঝতে পারছেন না কিভাবে এই ঘটনা ঘটল। তাঁদের দাবি, সৌম্য তৃণমূলকে যেমন ভালবাসতেন, তেমনই তৃণমূলের নেতা-কর্মীরাও তাঁকে খুব ভালবাসতেন। তবে কী কারণে ঘটনা, তা কিছুতেই বুঝতে পারছেন না তাঁরা।

যুবনেতার মৃত্যুর ঘটনায় শোকস্তব্ধ স্থানীয় বিধায়ক পার্থ ভৌমিক। তিনি বলেন, 'সৌম্য খুবই ভালো ছেলে ছিল। তবে কী কারণে এই ঘটনা ঘটেছে তা কিছু বোঝা যাচ্ছে না। '

বন্ধ করুন