বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > টিএমসিপি–এসএফআই সংঘর্ষে রণক্ষেত্র উত্তরপাড়া কলেজ, বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন
এসএফআই-এর মিছিলে হামলা ছবি প্রতীকী।

টিএমসিপি–এসএফআই সংঘর্ষে রণক্ষেত্র উত্তরপাড়া কলেজ, বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন

  • রাস্তায় ফেলে চুলের মুঠি ধরে মারধর করা হয়। পাল্টা একই অভিযোগ করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদও।

হঠাৎ রণক্ষেত্র হয়ে উঠল উত্তরপাড়া কলেজ চত্ত্বর। তৃণমূল ছাত্র পরিষদ এবং এসএফআইয়ের সদস্যদের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ ঘটে বলে অভিযোগ। বৃহস্পতিবার দুপুরে এই সংঘর্ষে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে কলেজ চত্ত্বরে। তাতে বেশ কয়েকজন জখম হয়েছে বলে খবর। অভিযোগ, এসএফআইয়ের একটি মিছিল চলছিল। তখন তাদের সদস্যদের ব্যাপক মারধর করে তৃণমূল কংগ্রেসের ছাত্র পরিষদের সদস্যরা। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছয় যে, হাতাহাতি থেকে লাঠিসোঁটা বেরিয়ে আসে। এমনকী রাস্তায় ফেলে চুলের মুঠি ধরে মারধর করা হয়। পাল্টা একই অভিযোগ করেছে তৃণমূল ছাত্র পরিষদও।

ঠিক কী অভিযোগ এসএফআই–এর?‌ আজ এসএফআই অভিযোগ করেছে, ছাত্র সংসদ নির্বাচন–সহ বিভিন্ন দাবি নিয়ে উত্তরপাড়া স্টেশন থেকে উত্তরপাড়া কলেজ স্ট্যান্ড পর্যন্ত মিছিল করা হয়। তারপর একটি সভা করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছিল। তখনই কিছু এসএফআই সমর্থককে বেধড়ক মারধর করা হয়। অভিযোগের তির টিএমসিপি’‌র বিরুদ্ধে। যদিও টিএমসিপি’‌র অভিযোগ, এসএফআই নিজেদের ক্ষমতা জাহির করতে কলেজে এসে ঝামেলা করে। তখনই দু’পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়।

এসএফআই–এর পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, এই ঘটনা যখন ঘটছিল তখন নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছে পুলিশ। লাঠি থেকে ক্রিকেট ব্যাট কোনও কিছুই বাদ যায়নি এই আক্রমণে। অস্থায়ী মঞ্চ ভেঙে দেওয়া হয়। যদিও তৃণমূল ছাত্র পরিষদের অভিযোগ, ওদের বাহিনীই আমাদের মারধর করেছে। একজনের পা থেঁতলে দিয়েছে। পরীক্ষা সময় গণ্ডগোল পাকাচ্ছিল।

এই ঘটনায় কলেজ চত্ত্বরে ব্যাপক পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে উত্তরপাড়ার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তাপস মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‌এসএফআইয়ের অভিযোগ মিথ্যা। পায়ের নীচে মাটি তো নেই বলে এসব গল্প ফাঁদছে। শান্তিপূর্ণ এলাকায় অশান্তি পাকাতে এসব ছল।’‌ এখন কলেজ গেট বন্ধ রাখা হয়েছে।

বন্ধ করুন