বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‌ছাগলের পর কচ্ছপ, পশুপ্রেমে ফের নজির ভাতার থানার পুলিশকর্মীদের
ভাতার থানায় উদ্ধার হওয়া কচ্ছপ। ছবি : সংগৃহীত
ভাতার থানায় উদ্ধার হওয়া কচ্ছপ। ছবি : সংগৃহীত

‌ছাগলের পর কচ্ছপ, পশুপ্রেমে ফের নজির ভাতার থানার পুলিশকর্মীদের

  • খিদের টানেই জলাশয় ছেড়ে থানায় হাজির হয় ওই কচ্ছপ। এলাকায় খবর ছড়াতেই অনেকে থানায় হাজির হন কচ্ছপটিকে দেখতে।

কিছুদিন আগেই দুটি সদ্যোজাত ছাগল–সহ মোট ৬টি ছাগল নিয়ে বেশ বেকায়দায় পড়েছিলেন পূর্ব বর্ধমানের ভাতার থানার পুলিশকর্মীরা। সদ্যোজাত ছাগল দুটির দেখাশোনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল ২ সিভিক ভলান্টিয়ারকে। আর এবার ঘুরতে ঘুরতে সেই থানায় পৌঁছল একটি কচ্ছপ। আসলে খিদের টানেই জলাশয় ছেড়ে থানায় হাজির হয় ওই কচ্ছপ। এলাকায় খবর ছড়াতেই অনেকে থানায় হাজির হন কচ্ছপটিকে দেখতে।

শনিবার তখন কাজে ব্যস্ত ভাতার থানার পুলিশকর্মীরা। আচমকা তাঁদের মধ্যে একজন দেখেন, একটি কচ্ছপ ঢুকে পড়েছে থানায়। প্রথমে তাকে দেখে কী করবে তা বুঝে উঠতে পারেননি তিনি। তার পরই বিষয়টি তিনি জানান থানার ওসি প্রণব বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সঙ্গে সঙ্গে ওসি জেলার গুসকরা বন দফতরে থানায় কচ্ছপের আগমনের খবর দেন। এর পরই বনকর্মীরা এসে ওই কচ্ছপটিকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।

খাবারের সন্ধানেই হয়তো কচ্ছপটি জলাশয় থেকে উঠে এসেছিল, এমনই জানিয়েছেন বন দফতরের আধিকারিক সঞ্জীব রায়। তিনি জানান, দেশি প্রজাতির এই কচ্ছপটিকে তাঁরা বন দফতরের জলাশয়ে ছেড়ে দেবেন। সেখানে তার খাবারের কোনও অভাব হবে না। আইনকানুন, দুষ্কৃতীদের সামলানোর পাশাপাশি পুলিশের এই ভূমিকায় খুশি স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁদের মধ্য একজন সঞ্জীব কার্ফা জানান, পুলিশ এই উদ্যোগ না নিলে প্রাণীটির দুর্গতি বাড়ত।

বন্ধ করুন