বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > করোনা সংক্রমণ এড়াতে অনির্দিষ্টকালের জন্য সুন্দরবনের দরজা বন্ধ
এমন দৃৃশ্য আপাতত চোখে পড়বে না সুন্দরবনে। ছবি: সংগৃহীত
এমন দৃৃশ্য আপাতত চোখে পড়বে না সুন্দরবনে। ছবি: সংগৃহীত

করোনা সংক্রমণ এড়াতে অনির্দিষ্টকালের জন্য সুন্দরবনের দরজা বন্ধ

  • বন্ধ থাকবে যে কোনও ধরনের শুটিং, গবেষণার কাজও

দক্ষিণরায়ের দেখা পেতে সুন্দরবন যাওয়ায় পথে পড়ল বাধা। অনির্দিষ্টকালের জন্য পর্যটন বন্ধ হয়ে গেল সুন্দরবনে। বন্ধ থাকবে যে কোনও ধরনের শুটিং, গবেষণার কাজও। করোনা সংক্রমণের জেরেই সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের তরফ থেকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সুন্দরবন লাগোয়া দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন এলাকায় লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। শুধুমাত্র ক্যানিং মহকুমাতেই আক্রান্তের সংখ্যা দুশো ছাড়িয়েছে। একসময়ের করোনামুক্ত গোসাবা ব্লকে মঙ্গলবার পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ জন। এমন সময় এ সব পথ ধরে পর্যটকরা সুন্দরবনে ঢুকলে করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। সংক্রমিত হতে পারেন সুন্দরবনের বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রে থাকা বনকর্মীরা। এই পরিস্থিতি মাথায় রেখেই সুন্দরবনে পর্যটন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানালেন সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্পের ফিল্ড ডিরেক্টর তাপস দাস।

দেশ জুড়ে লকডাউনের জেরে প্রায় আড়াই মাস সুন্দরবনে পর্যটন বন্ধ রাখা হয়। ফের ১৫ জুন পর্যটকদের জন্য সুন্দরবন খুলে দেয় বন দফতর। আমফানে প্রভূত ক্ষতি হয় ম্যানগ্রোভ বেষ্টিত সুন্দরবনের। টানা লকডাউনে সুন্দরবনের পর্যটন ব্যবসা মুখ থুবড়ে পড়ে।

১৫ জুনের পর কিছু পর্যটক আসতে শুরু করলে আশায় বুক বাঁধেন ব্যবসায়ীরা। পুজোর দিনগুলির দিকে তাকিয়ে ছিলেন তাঁরা। কিন্তু করোনা মোকাবিলায় ফের পর্যটন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তে নতুন করে দুশ্চিন্তায় পড়লেন সুন্দরবনের সাধারণ মানুষ ও পর্যটন ব্যবসায়ীরা।

বন্ধ করুন