প্রতীকি ছবি
প্রতীকি ছবি

শিলদায় শিশুর মৃত্যুতে বৃহন্নলাদের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত খুনের ধারা দিল পুলিশ

বৃহস্পতিবার পরিবারের নিষেধ না শুনে শিশুটিকে নাচান বৃহন্নলারা। এর পরই মৃত্যু হয় শিশুটির।

নাচানোর পর সদ্যোজাতের মৃত্যুর ঘটনায় বৃহন্নলাদের বিরুদ্ধে কঠোর ধারায় মামলা রুজু করল বিনপুর থানার পুলিশ। শুক্রবার মর্মান্তিক এই ঘটনায় সুমন নামে এক নবজাতকের মৃত্যু হয়। ঘটনার সঙ্গে যুক্ত বৃহন্নলাদের গ্রেফতার করে ঝাড়গ্রাম আদালতে পেশ করেছে পুলিশ। তাদের জামিনের আবেদন খারিজ করে ১৪ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

ঝাড়গ্রামের শিলদার বাসিন্দা চন্দন খিলারের গত ৪ ডিসেম্বর যমজ পুত্রসন্তান হয়। তার মধ্যে একটি শিশুর হৃদযন্ত্রে সমস্যা ছিল। বেশ কিছুদিন হাসপাতালে থাকার পর তাকে সম্প্রতি বাড়িতে নিয়ে আসেন পরিজনরা। এর পরই খিলার দম্পতির বাড়িতে হানা দেয় বৃহন্নলারা। বৃহস্পতিবার তারা চন্দন খিলারের কাছে ১০,০০০ টাকা দাবি করে। এর পর অসুস্থ সুমনকে নিয়ে নাচতে থাকে তারা।

পরিজনদের দাবি, শিশুটি অসুস্থ বলে জানালেও বৃহন্নলারা কানে তোলেননি। কিছুক্ষণের মধ্যেই ধকল সইতে না পেরে শিশুটির শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

ঘটনায় বৃহন্নলাদের বিরুদ্ধে বিনপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন চন্দনবাবু। এর পরই বৃহন্নলাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৪ ধারায় অনিচ্ছাকৃত খুনের মামলা রুজু হয়েছে। এই ধারায় সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড।

ঘটনায় নিন্দার ঝড় উঠেছে রাজ্যজুড়ে। বিভিন্ন জায়গায় সদ্যোজাতকে আশীর্বাদ করার নামে বৃহন্নলাদের মাত্রা ছাড়ায়। আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া পরিবারগুলিও ছাড় পায় না বলে অভিযোগ। বৃহন্নলাদের ওপর নিয়ন্ত্রণ টানতে প্রশাসনের উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন বলেও দাবি তুলেছেন অনেকে।

বন্ধ করুন