বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > বকখালিতে ভয়াবহ ট্রলারডুবি, নিখোঁজ ১০ মৎস্যজীবী, বাড়ছে মৃত্যুর আশঙ্কা
রক্তেশ্বরী চরের কাছে ডুবে যায় হৈমবতী নামে ওই ট্রলারটি।
রক্তেশ্বরী চরের কাছে ডুবে যায় হৈমবতী নামে ওই ট্রলারটি।

বকখালিতে ভয়াবহ ট্রলারডুবি, নিখোঁজ ১০ মৎস্যজীবী, বাড়ছে মৃত্যুর আশঙ্কা

  • ১২ জন মৎসজীবি নিয়ে এই ট্রলারটি মাছ ধরতে গিয়েছিল। মাছ ধরে ফেরার সময় সমুদ্রে প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যে ট্রলারটি ডুবে যায়।

বঙ্গোপসাগরে হৈমবতী নামে একটি ট্রলার ডুবে নিখোঁজ হলেন ১২ জন মৎস্যজীবী। বুধবার ভোরে বকখালি থেকে চার কিলোমিটার দূরে রক্তেশ্বরী চরের কাছে ডুবে যায় হৈমবতী নামে ওই ট্রলারটি। এই ট্রলারটি ছেড়েছিল নামখানা থেকে ১৫ দিন আগে। ১২ জন মৎস্যজীবী নিয়ে এই ট্রলারটি মাছ ধরতে গিয়েছিল। মাছ ধরে ফেরার সময় সমুদ্রে প্রতিকূল পরিস্থিতির মধ্যে ট্রলারটি ডুবে যায়। অন্যান্য ট্রলার এসে দু’‌জন মৎসজীবীকে উদ্ধার করতে পেরেছে বলে সূত্রের খবর।

ওয়েস্ট বেঙ্গল ইউনাইটেড ফিশারম্যান অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক বিজন মাইতি জানান, এফবি হৈমবতী নামে ওই ট্রলারটি সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছিল। ট্রলারে ছিলেন মোট ১২ জন মৎস্যজীবী। আবহাওয়া খারাপ থাকায় ফিরে আসছিল ট্রলারটি। তখনই রক্তেশ্বরী চরের কাছে ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে। আশপাশের ট্রলারে থাকা মৎস্যজীবীদের ঘটনাটি নজরে আসে। তড়িঘড়ি তাঁরা উদ্ধার কাজে হাত লাগান। তবে ওই ট্রলারে থাকা ১০ জন এখনও নিখোঁজ। তাঁদের মৃত্যুর আশঙ্কাও এড়ানো যাচ্ছে না।

উল্লেখ্য, গত ১৮ জুন বকখালিতে ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে। কলস দ্বীপের কাছে এফবি তারামা ট্রলার ডুবে যায়। প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই উদ্ধার করা হয় ট্রলারে থাকা ১২ জন মৎস্যজীবীকে। খারাপ আবহাওয়ার সতর্কতা জারি থাকা সত্ত্বেও মৎস্যজীবীরা ট্রলার নিয়ে গভীর সমুদ্রে যাওয়ার প্রবণতা দেখা দিয়েছে। তার ফলে ঘটছে বিপদ।

বন্ধ করুন