বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পা পিছলে পড়ে গিয়ে বিধায়কের মাথায় ঢুকে গেল দরজার হাতল
তৃণমূল বিধায়ক খগেশ্বর রায়। ফাইল ছবি।

পা পিছলে পড়ে গিয়ে বিধায়কের মাথায় ঢুকে গেল দরজার হাতল

  • ঘটনায় তাঁর মাথা থেকে প্রচুর পরিমাণে রক্তপাত হতে শুরু করলে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় শিলিগুড়ির একটি নার্সিংহোমে। সেখানেই তাঁর চিকিৎসা করা হয়।

নিজের বাড়িতে দুর্ঘটনায় আহত হলেন জলপাইগুড়ির রাজগঞ্জের তৃণমূল বিধায়ক খগেশ্বর রায়। ঘটনায় তিনি গুরুতর চোট পেয়েছেন। তাঁর মাথা ফেটে যায় বলে পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে। তাঁকে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে তাঁর চিকিৎসা করা হয়। তৃণমূল বিধায়কের মাথায় পাঁচটি সেলাই পড়েছে বলে জানা যাচ্ছে। বর্তমানে তিনি সুস্থ রয়েছেন বলে পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাতে। সেই সময় তিনি নিজের বাড়িতেই ছিলেন। ঘরের ভিতরে হাঁটতে গিয়ে কোনওভাবে পা পিছলে পড়ে যান তিনি। এরপরে দরজার হাতল তাঁর মাথায় ঢুকে যায়। ঘটনায় তাঁর মাথা থেকে প্রচুর পরিমাণে রক্তপাত হতে শুরু করলে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় শিলিগুড়ির একটি নার্সিংহোমে। সেখানেই তাঁর চিকিৎসা করা হয়। মাথা ফেটে যাওয়ার কারণে মাথায় পাঁচটি সেলাই করা হয়। পরে মঙ্গলবার তাঁকে নার্সিংহোম থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় তৃণমূলের স্থানীয় নেতারা উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। কিছুদিন আগেই তিনি দলীয় কর্মসূচিতে যোগদান করেছিলেন।

প্রসঙ্গত, রাজগঞ্জের দাপুটে নেতা হিসেবে পরিচিত খগেশ্বর রায়। তিনি সেখানকার চারবারের বিধায়ক। ২০০৯ সাল থেকে তিনি রাজগঞ্জের বিধায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। ২০২১ সালে বিজেপির সুপেন রায়কে ১৫ হাজারেরও বেশি ভোটে পরাজিত করেছেন। এলাকায় একজন ভাল মানুষ হিসেবে পরিচিত হলেও তাঁর বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে। পুত্রবধূকে শারীরিক ও মানসিক অত্যাচারের অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। গতবছর খগেশ্বর রায় এবং তার ছেলের বিরুদ্ধে বধূ নির্যাতনের অভিযোগ তুলেছিলেন তাঁর পুত্রবধু।

 

বন্ধ করুন