বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ভোট প্রচারে বড়দিনকে হাতিয়ার, সান্তা সেজে কেক তুলে দিয়ে ভোট চাইল তৃণমূল
ভোট প্রচারে বড়দিনকে হাতিয়ার, সান্তা সেজে কেক তুলে দিয়ে ভোট চাইল তৃণমূল। ছবিটি প্রতীকী। (Samir Jana/HT Photo)

ভোট প্রচারে বড়দিনকে হাতিয়ার, সান্তা সেজে কেক তুলে দিয়ে ভোট চাইল তৃণমূল

  • খড়্গপুরে বড়দিনের আগে বাড়িতে বাড়িতে কেক পৌঁছে দিলেন তৃণমূল নেতারা। পুর ভোটকে সামনে রেখে এভাবেই অভিনব কায়দায় প্রচার চালালেন খড়্গপুরের তৃণমূল নেতৃত্ব।

বাকি পুরসভাগুলোতে ভোট এগিয়ে আসতেই জনসংযোগ বাড়াতে তৎপর তৃণমূল। খড়্গপুরে বড়দিনের আগে বাড়িতে বাড়িতে কেক পৌঁছে দিলেন তৃণমূল নেতারা। পুর ভোটকে সামনে রেখে এভাবেই অভিনব কায়দায় প্রচার চালালেন খড়্গপুরের তৃণমূল নেতৃত্ব। ভোট প্রচারের জন্য তারা বেছে নিলেন বড়দিন উৎসবকে। শুক্রবার রাতে পুরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে কেক তুলে দিয়ে স্থানীয়দের জোড়া ফুলে ভোট দেওয়ার আবেদন জানালেন তৃণমূল নেতারা।

এই অভিনব প্রচারে ছিলেন স্থানীয় তৃণমূল নেতা নির্মল ঘোষ। তৃণমূল সূত্রে জানা যাচ্ছে, সামনেই খড়গপুর পুরসভার ভোট সেই কারণে কেক উপহার দিয়ে মানুষের কাছে ভোট চাওয়া হয়েছে। তৃণমূল নেতা নির্মল ঘোষ ভোট চাওয়ার পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রীর বিভিন্ন জনকল্যাণ মূলক প্রকল্পের কথা মানুষের কাছে তুলে ধরেন। যার মধ্যে রয়েছে দুয়ারে রেশন থেকে শুরু করে লক্ষীর ভান্ডার, স্বাস্থ্য সাথী কার্ড প্রভৃতি প্রকল্প। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, তাদের বাড়িতে বাড়িতে কেক দিয়েছেন তৃণমূল নেতারা। পুরভোটে তৃণমূলকে দেওয়ার জন্য তারা আবেদন জানিয়েছেন।

শুধু খরগপুর পুরসভা নয়, একই ছবি দেখা গিয়েছে বরানগর পুরসভায়। পুরসভার ১২ নম্বর ওয়ার্ডে সান্তা সেজে পথ চলতি মানুষের হাতে কেক তুলে দেন তৃণমূল নেতারা। যদিও তৃণমূল নেতাদের এরকমভাবে প্রচারকে ভালো চোখে দেখছে না বিজেপি। এ নিয়ে তৃণমূলকে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি বিজেপি নেতারা। তাদের বক্তব্য, 'তৃণমূল ভাওয়াবাজদের দল সেটা ভালো করেই জানেন মানুষ। এখন কেক দিয়ে তারা মানুষের মন ভোলানোর চেষ্টা করছেন।

প্রসঙ্গত, কলকাতা হাইকোর্টে রাজ্য নির্বাচন কমিশন বাকি পুরনিগামগুলিতে ২২ জনুয়ারি এবং পুরসভাগুলিতে ২৭ ফেব্রুয়ারি ভোট করার প্রস্তাব দিয়েছে। তারপরে পুর এলাকাগুলিতে ভোট প্রচারে তৎপর হয়েছে তৃণমূল।

 

বন্ধ করুন