বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তোলা না পাওয়ায় চালককে মারধর পুলিশের, দীর্ঘক্ষণ রাস্তা অবরোধ
লরি চালকদের প্রতিবাদে জেরে রাস্তায় যানজট। প্রতীকী ছবি।

তোলা না পাওয়ায় চালককে মারধর পুলিশের, দীর্ঘক্ষণ রাস্তা অবরোধ

  • এই ঘটনার সূত্রপাত হরিয়ানার আনিস খান নামে এক লরি চালকের কাছে তোলা চাওয়া নিয়ে।

তোলা চেয়েছিল পুলিশ। কিন্তু, তা দিতে অস্বীকার করেছিলেন লরির চালক। সেই ক্ষোভে চালককে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠল ট্রাফিক পুলিশের বিরুদ্ধে। এই অভিযোগকে কেন্দ্র করে দুর্গাপুর এক্সপ্রেস হাইওয়েতে ডানকুনি টোল প্লাজার কাছে দু'ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে জাতীয় সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ জানালেন চালকরা। যার জেরে রাস্তায় ব্যাপক যানজট দেখা যায়।

সাধারণত এই হাইওয়েতে প্রায়ই পুলিশের বিরুদ্ধে তোলা নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। তাই এদিন পুলিশের তোলা চাওয়ার ঘটনায় ক্ষোভ উগরে দিলেন চালকরা। এই ঘটনার সূত্রপাত হরিয়ানার আনিস খান নামে এক লরি চালকের কাছে তোলা চাওয়া নিয়ে। তিনি তোলা দিতে অস্বীকার করলে তাকে বেধড়ক মারধর করে পুলিশ। ঘটনার জেরে তাকে শ্রীরামপুর ওয়ালস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরই প্রতিবাদে সরব হতে দেখা যায় অন্যান্য লরি চালক এবং গাইডদের। তাদের বক্তব্য, হরিয়ানা থেকে ধান ঝাড়া মেশিন নিয়ে কলকাতার দিকে যাচ্ছিলেন ওই লরি চালক। সেই সময় তোলা দিতে অস্বীকার করায় তাকে মারধর করেছেন ট্রাফিক পুলিশ।

 

তাদের অভিযোগ, পুলিশের এই জুলুম অনেকদিন ধরে চলে আসছে। তোলা চেয়ে তাদের বহুদিন ধরেই হয়রানি করা হচ্ছে বাইরের রাজ্য থেকে আসা ট্রাক চালকদের। আর ভয়ে তারা তোলা দিতে বাধ্য হচ্ছেন। পুলিশ এ বিষয়ে তোলা যাওয়ার অভিযোগ মানতে চায়নি। হুগলি গ্রামীন পুলিশ সুপার আমন দীপ টেলিফোনে জানান, ‘সিগনালিং ব্যবস্থাপনার জন্য ট্রাক চালককে আটক করা হয়েছিল। গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চাইলে তারা পুলিশের উপর চড়াও এবং তাদের ধাক্কা মারেন তখন তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। তবে তোলা চেয়ে মারধরের অভিযোগ পুরোপুরি মিথ্যে।

বন্ধ করুন