বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > এবার তুলসী চা: সরকারি সহায়তায় রাজ্যকে পথ দেখাচ্ছে কোচবিহার
স্বনির্ভর গোষ্ঠীর উদ্যোগে চলছে তুলসী পাতার চাষ (ফেসবুক)
স্বনির্ভর গোষ্ঠীর উদ্যোগে চলছে তুলসী পাতার চাষ (ফেসবুক)

এবার তুলসী চা: সরকারি সহায়তায় রাজ্যকে পথ দেখাচ্ছে কোচবিহার

  • স্থানীয় সূত্রে খবর, মূলত পতিত জমিতেই তুলসীর চাষ করা হচ্ছে।

কোচবিহারের তুফানগঞ্জ ১ ব্লকের নাটাবাড়ি ২ গ্রাম পঞ্চায়েত। সেখানে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর উদ্যোগ শুরু হয়েছে তুলসী চাষ। গ্রামের মহিলারা একেবারে যত্ন করে তুলসীর চাষ করছেন। আর সেই তুলসীর সঙ্গে চা পাতা মিশিয়ে তৈরি হচ্ছে তুলসী চা। সরকারি আধিকারিকদের দাবি, এতদিন শুধুমাত্র তুলসী পাতার চাষ করতেন মহিলারা। এবার তা থেকে তৈরি হচ্ছে তুলসী চা। রাজ্যের মধ্যে একমাত্র কোচবিহারেই এই ধরনের তুলসী চা তৈরি হচ্ছে বলে বিভিন্ন মহল থেকে দাবি করা হচ্ছে। আর সেই নিরিখে গোটা রাজ্যকে পথ দেখাচ্ছে কোচবিহার।

নাটাবাড়ি ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের সিনিয়র আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল অফিসার বাসবকান্তি দিন্দা সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গে এই প্রথম স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলাদের দ্বারা তুলসী চা তৈরি হচ্ছে। কোচবিহারে আগে থেকে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা তুলসীর চাষ করছিলেন। এবার তা থেকে তুলসী চা তৈরি শুরু হয়েছে। পাশাপাশি পঞ্চায়েত থেকেও অনেকে এই তুলসী চাষে উৎসাহ দেখাচ্ছেন। 

এদিকে স্থানীয় সূত্রে খবর, মূলত পতিত জমিতেই তুলসীর চাষ করা হচ্ছে। এরপর সেখানে থেকে পাতা তুলে তার সঙ্গে নির্দিষ্ট পরিমাণ চা মিশিয়ে তৈরি হচ্ছে তুলসী চা। এরপর প্যাকেটজাত করে তা চলে যাচ্ছে বাজারে। মোটামুটি ভাবে ৫০ শতাংশ তুলসীর সঙ্গে ৫০ শতাংশ চা পাতা মেশানো হচ্ছে। তবে স্বনির্ভর গোষ্ঠী সূত্রে খবর, তুলসী চাষে খরচ অত্যন্ত কম। পাশাপাশি সরকারি পরামর্শও মিলছে। এমনকী তুলসী গ্রামও তৈরি হয়েছে কোচবিহারে।

 

বন্ধ করুন