বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > দিব্যি চলছিল প্রশিক্ষণ, বন দফতরের ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে হাতানো হল ১৪ লাখ টাকা
বনদফতরের ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা, ধৃত ২:  ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।
বনদফতরের ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা, ধৃত ২:  ছবি সৌজন্যে হিন্দুস্তান টাইমস।

দিব্যি চলছিল প্রশিক্ষণ, বন দফতরের ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে হাতানো হল ১৪ লাখ টাকা

ধৃতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে , এরা তিন চাকরি প্রার্থীর কাছ থেকে বনদফতরের ভুয়ো নিয়োগ পত্র দিয়ে মোট ১৪ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

সরকারি চাকরির টোপ দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার প্রতারণার অভিযোগ উঠল দুর্গাপুরে। বন দফতরের চাকরির ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে চাকরিপ্রার্থীদের সঙ্গে প্রতারণা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার জেরে ২ অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে কোক ওভেন থানার পুলিশ।

এই ঘটনায় বড় ধরনের জালিয়াতি চক্র জড়িত রয়েছে বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। সেই কারণে অভিযুক্তদের নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চাইছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত অভিযুক্তদের নাম সোমনাথ চক্রবর্তী ও সঞ্জয় দাস। ধৃতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে , তারা তিন চাকরিপ্রার্থীর কাছ থেকে বন দফতরের ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়ে মোট ১৪ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। প্রতারিত চাকরিপ্রার্থীরা কোক ওভেন থানায় গিয়ে লিখিত অভিয়োগ দায়ের করেন। অভিয়োগ পেয়ে তদন্তে নেমে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বন দফতরের ফরেস্ট গার্ড পদে চাকরির জন্য অভিযুক্ত সোমনাথ ও সঞ্জয়কে ১৪ লক্ষ টাকা দিয়েছিলেন এক ব্যক্তি। প্রতারিতদের দাবি, সোমনাথ নিজেকে বন দফতরের বোলপুর ডিভিশনের ডিএফও বলে পরিচয় দিয়েছিলেন। আর সঞ্জয় পরিচয় দেয় বন দফতরের রেঞ্জার হিসেবে। পুলিশের দাবি, ওই তিনজনকেই ভুয়ো নিয়োগপত্র দিয়েছিল ওই দুই প্রতারক। সেই ভুয়ো নিয়োগপত্র দেখিয়ে তাঁরা আউশগ্রামের আদুরিয়া বিটে আট দিনের প্রশিক্ষণও দিয়েছিল। পরে বন দফতর সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে জানিয়ে দেয় ওই নিয়োগপত্রগুলি ভুয়ো। এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছিলেন তিন চাকরিপ্রার্থী।

বন্ধ করুন