বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ‌কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে পলাতক যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামী, শুরু তদন্ত
‌কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে পলাতক যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামী, শুরু তদন্ত (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
‌কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে পলাতক যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামী, শুরু তদন্ত (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

‌কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে পলাতক যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামী, শুরু তদন্ত

  • মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে পালিয়ে গেল দুই সাজাপ্রাপ্ত আসামী।

এবার সরাসরি কারাগার কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ উঠল। কারণ মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে পালিয়ে গেল দুই সাজাপ্রাপ্ত আসামী। ওই দুই আসামীর নাম মিঠুন দাস ও মনোজিৎ বিশ্বাস। সোমবার সন্ধ্যায় বন্দিদের গোনার সময় দুই বন্দির খোঁজ মেলেনি মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে। এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার কর্তৃপক্ষ জানান, দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত দুই আসামী মিঠুন দাস ও মনোজিৎ বিশ্বাসকে দু’‌মাস আগে পাঠানো হয় এই মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মিঠুন দাসের বাড়ি বারাসত থানার নিবেদিতা পল্লিতে। আর মনোজিৎ বিশ্বাসের বাড়ি উল্টোডাঙা থানার বাসন্তী কলোনিতে। সূত্রের খবর, সোমবার সন্ধ্যায় দুই আসামীর নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা নজরে আসে কারা কর্তৃপক্ষের। তারপরেই দুই আসামীকে খোঁজার জন্য তৎপর হয় পুলিশ। ইতিমধ্যেই শহরের এন্ট্রি–এগজিট পয়েন্টগুলিতে নাকা চেকিং চালানো হচ্ছে মেদিনীপুর কোতোয়ালি থানার পুলিশের পক্ষ থেকে। জেলের কড়া নিরাপত্তা থাকা সত্ত্বেও কীভাবে তারা পালিয়ে গেল তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। নজরদারিতে গাফিলতি ছিল বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে।

ইতিমধ্যেই পশ্চিম মেদিনীপুরজুড়ে পুলিশ নাকা চেকিং শুরু করেছে। দু’‌জন সাজাপ্রাপ্ত আসামী মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার থেকে পালিয়ে গেল তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে কারা কর্তৃপক্ষ। তবে ওই ঘটনা সম্পর্কে কারা কর্তৃপক্ষ বিশেষ কিছুই বলতে চাইছে না। যার ফলে মেদিনীপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছে এলাকার বাসিন্দারা। এখনও পর্যন্ত তাদের কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি বলেই খবর।

বন্ধ করুন