বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > মহিলার গলাকাটা মৃতদেহ উদ্ধার, ডায়মন্ড হারবার রেললাইনের ধারে পড়েছিল‌
বাশুলডাঙা ও নেতড়া স্টেশনের মাঝে রেললাইনে মহিলার মৃতদেহ

মহিলার গলাকাটা মৃতদেহ উদ্ধার, ডায়মন্ড হারবার রেললাইনের ধারে পড়েছিল‌

  • মঙ্গলবার সকালে ডায়মন্ড হারবার এলাকার বাশুলডাঙা ও নেতড়া স্টেশনের মাঝে রেললাইনের ধারে মহিলার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। শরীরে গভীর ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় ডায়মন্ড হারবার থানার পুলিশ। তবে এখনও পর্যন্ত ওই মহিলার পরিচয় জানা যায়নি।

আজ, মঙ্গলবার ডায়মন্ড হারবারের বাশুলডাঙায় অজ্ঞাতপরিচয় মহিলার মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। বাশুলডাঙা ও নেতড়া স্টেশনের মাঝে রেললাইনে মহিলার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। রেললাইনের পাশে মহিলার গলাকাটা রক্তাক্ত দেহ দেখে সবাই শিউরে ওঠেন। প্রশ্ন উঠছে, এটা কী খুন?‌ নাকি ধর্ষণ করে খুন?‌ বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ডায়মন্ড হারবার থানার পুলিশ।

ঠিক কী ঘটেছে ডায়মন্ড হারবারে?‌ স্থানীয় সূত্রে খবর, মঙ্গলবার সকালে ডায়মন্ড হারবার এলাকার বাশুলডাঙা ও নেতড়া স্টেশনের মাঝে রেললাইনের ধারে মহিলার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়। শরীরে গভীর ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছয় ডায়মন্ড হারবার থানার পুলিশ। তবে এখনও পর্যন্ত ওই মহিলার পরিচয় জানা যায়নি।

ঠিক কী তথ্য পেয়েছে পুলিশ?‌ পুলিশ সূত্রে খবর, মৃত মহিলার বয়স আনুমানিক ৩৫ বছর। পোশাক অনেকটা আলগা ছিল। মৃতদেহের পাশে মিলেছে একটি ব্যাগও। মহিলার পরিচয় এখনও জানা যায়নি। দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। বিভিন্ন থানায় ছবি পাঠানো হচ্ছে। দেহের পাশে পড়ে থাকা প্রেসক্রিপশনে রেজিনা খাতুন নাম লেখা রয়েছে। এই নাম মৃতার কিনা তা খোঁজ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, সোমবার রাতে হরিশ মুখার্জি রোডে জোড়া খুনের ঘটনা ঘটেছে। রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। ভবানীপুরের গুজরাতি ব্যবসায়ী দম্পত্তির এই মৃত্যু নিয়ে দানা বেঁধেছে। মুখ্যমন্ত্রী অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার করার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনারকে। রক্তাক্ত অশোক–রশ্মিতা শাহকে কারা খুন করল?‌ সিসিটিভি ফুটেজ কতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বন্ধ করুন