বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > Malda Incident: আবাস যোজনা নিয়ে ক্ষোভ‌, শুনলেন না কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, কালো পতাকা দেখাল গ্রামবাসী

Malda Incident: আবাস যোজনা নিয়ে ক্ষোভ‌, শুনলেন না কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, কালো পতাকা দেখাল গ্রামবাসী

পঞ্চায়েত মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী কপিল মোরেশ্বর পাটিলকে কালো পতাকা দেখান গ্রামবাসীরা।

অভিযোগ জানাতে আরও গ্রামবাসী জড়ো হন। তাঁরা প্রত্যেকেই চেয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে অভিযোগ জানাতে। কিন্তু সেসব না শুনে উত্তর চণ্ডীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের দফতরে ঢোকেন মন্ত্রী। গ্রামবাসীরা অভিযোগ জানাতে চেয়েও জানাতে না পারায় কালো পতাকা দেখিয়ে বিক্ষোভ দেখান।

জেলা সফরে এসেছেন কেন্দ্রীয় পঞ্চায়েত প্রতিমন্ত্রী কপিল মোরেশ্বর পাটিল। আর তারপরই প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় বঞ্চিতদের ক্ষোভের মুখে পড়লেন। আজ, বুধবার মালদার ভূতনির চরে বঞ্চিতদের কথা না শুনে পঞ্চায়েত অফিসে ঢুকে পড়েন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তখনই শুরু হয় বিক্ষোভ। কেন্দ্রের রাষ্ট্রীয় মন্ত্রীকে কালো পতাকা দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। মালদার উত্তর চণ্ডীপুর গ্রামে আবাস দুর্নীতি নিয়ে মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলেন গ্রামবাসীরা। কিন্তু মন্ত্রী পুরো কথা না শুনে চলে যাওয়ায় তাঁকে কালো পতাকা দেখানো হয় বলে অভিযোগ। এই ঘটনায় জোর শোরগোল পড়েছে।

আজ, বুধবার দুপুরে গঙ্গা–ফুলহার নদী ঘেরা ভুতনি চর এলাকায় পরিদর্শনে যান কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রমন্ত্রী। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ইংরেজবাজারের বিজেপি বিধায়ক শ্রীরূপা মিত্র চৌধুরী–সহ জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। সেখানেই গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসের সামনে আগে থেকেই মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন গ্রামবাসীরা। কিন্তু কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গ্রামবাসীদের উপেক্ষা করেন এবং পঞ্চায়েত অফিসে ঢুকে পড়েন বলে অভিযোগ। তাতেই গোল বাঁধে। অভিযোগ জানাতে আরও গ্রামবাসী জড়ো হন। তাঁরা প্রত্যেকেই চেয়েছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে অভিযোগ জানাতে। কিন্তু সেসব না শুনে উত্তর চণ্ডীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের দফতরে ঢোকেন মন্ত্রী। গ্রামবাসীরা অভিযোগ জানাতে চেয়েও জানাতে না পারায় কালো পতাকা দেখিয়ে বিক্ষোভ দেখান।

তারপর ঠিক কী ঘটল?‌ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী পঞ্চায়েত অফিস থেকে বের হতেই তাঁকে ঘিরে স্লোগান দিতে থাকেন গ্রামবাসীরা।পঞ্চায়েত মন্ত্রকের রাষ্ট্রমন্ত্রী কপিল মোরেশ্বর পাটিলকে কালো পতাকা দেখান গ্রামবাসীরা। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কালো পতাকা হাতে নিয়েই এক বিক্ষোভকারী বলেন, ‘‌শুধুমাত্র ভোটব্যাঙ্কের জন্য এসেছে। আমাদের কোনও কথাই শোনেননি। আমাদের দাবি ছিল গঙ্গাভাঙন রোধ। তা নিয়ে কোনও কথা শোনেননি।’‌

কে, কি বলছেন ঘটনা নিয়ে?‌ কালো পতাকা দেখার পর কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘‌গ্রামবাসীরা অভিযোগ জানায়নি। শুধু গঙ্গার ভাঙন নিয়ে তাঁদের সমস্যা রয়েছে। সেটা জানিয়েছে। বিষয়টি রাজ্য কেন্দ্রকে জানাক তাহলেই ব্যবস্থা হবে।’‌ আর রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, ‘‌কেন্দ্র–রাজ্য সমন্বয়ে রাজ্য়বাসীর কাছে সুবিধা পৌঁছে যায়। কিন্তু সবসময় কেন্দ্রবিরোধী মনোভাব নিয়ে চললে তো মুশকিল। রাজ্য়ে দুর্নীতি হয়েছে। তাই তারা হিসেব দিতে পারছে না। তাই কেন্দ্র টাকা পাঠাচ্ছে না।’‌ পালটা তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সহ–সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, ‘‌কেন্দ্র তো খেতে দেওয়ার ক্ষমতা নেই, কিল মারার গোঁসাই। বাংলার সঙ্গে বিমাতৃসুলভ আচরণ করছে কেন্দ্র। বাংলার নিন্দা করার আগে ওরা জবাব দিক, ৫ বছর পর কেন টাকা এল?’‌

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

বন্ধ করুন