বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > জোর করে ছাত্রীর সঙ্গে সহবাসের চেষ্টা, অভিযোগের তির বিশ্বভারতীর অধ্যাপকের দিকে

জোর করে ছাত্রীর সঙ্গে সহবাসের চেষ্টা, অভিযোগের তির বিশ্বভারতীর অধ্যাপকের দিকে

এক ছাত্রীকে জোর করে সহবাসের চেষ্টা করেছেন এক অধ্যাপক

সরাসরি কুপ্রস্তাব দিতে শুরু করেন অধ্যাপক। ছাত্রীর অভিযোগ, গবেষণাপত্রে সই করার নাম করে ঘরে ডাকেন ওই অধ্যাপক। সেখানে গেলে জোর করে সহবাসের চেষ্টা করেন। ওখান থেকে বেঁচে পালিয়ে বিভাগীয় প্রধান–সহ বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানান তিনি। বিশ্বভারতীর বিশাখা কমিটিতে জমা পড়েছিল অভিযোগ।

নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনের সঙ্গে বিশ্বভারতীর জমিজট কাটেনি। এই আবহে নতুন করে বিতর্কের মধ্যে পড়ল বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়। কারণ এখানের এক ছাত্রীকে জোর করে সহবাসের চেষ্টা করেছেন এক অধ্যাপক বলে অভিযোগ। আর এই অভিযোগ প্রকাশ্যে আসতেই আলোড়ন পড়ে গিয়েছে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে। জোর চর্চা শুরু হয়েছে ক্যাম্পাসে। যদিও ওই অধ্যাপক ছাত্রীটির সঙ্গে সহবাস করতে পারেননি। তবে শ্লীলতাহানি এবং কুপ্রস্তাব দিয়েছেন ওই অধ্যাপক বলে অভিযোগ উঠেছে।

ঠিক কী ঘটেছে বিশ্বভারতীতে?‌ বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠল এক অধ্যাপকের বিরুদ্ধে। প্রথমে ওই ছাত্রীকে লাগাতার কয়েকদিন কুপ্রস্তাব দেন ওই অধ্যাপক বলে অভিযোগ। তারপর ছাত্রীটি অধ্যাপকের কুপ্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় শুরু হয় মানসিক নির্যাতন। তাতেও লাভ হচ্ছে না দেখে একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে জোর করে সহবাস করার চেষ্টা করেন ওই অধ্যাপক বলে অভিযোগ। সেখান থেকে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করলে ছাত্রীটির শ্লীলতাহানি করা হয় বলে অভিযোগ করেন ওই ছাত্রী। ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪, ৩৫৪ এ, ৩৫৪ বি, ৩৫৪ ডি, ৫০৬, ৫০৯, ৩৭৬, ৫১১, ৫০০ ধারায় মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

আর কী জানা যাচ্ছে?‌ এই ঘটনা প্রকাশ্যে এখন এলেও সেটা আগে চেপে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল বলে অভিযোগ। সূত্রের খবর, ২০১৬ সালে শিক্ষা বিভাগে গবেষণা শুরু করেন ওই ছাত্রী। তখন থেকেই লাগাতার তাঁকে কুপ্রস্তাব দিয়ে আসছেন অভিযুক্ত অধ্যাপক। নানা অছিলায় ছাত্রীটির শরীরে কুস্পর্শ করতে থাকেন অধ্যাপক। আর ভাব করেন ভুল করে হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তাতে লাভ হচ্ছে না দেখে সরাসরি কুপ্রস্তাব দিতে শুরু করেন অধ্যাপক। ছাত্রীর অভিযোগ, গবেষণাপত্রে সই করার নাম করে ঘরে ডাকেন ওই অধ্যাপক। সেখানে গেলে জোর করে সহবাসের চেষ্টা করেন। ওখান থেকে বেঁচে পালিয়ে বিভাগীয় প্রধান–সহ বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানান তিনি। বিশ্বভারতীর বিশাখা কমিটিতে জমা পড়েছিল অভিযোগ। কিন্তু বিশেষ কোনও পদক্ষেপ করেনি বিশ্বভারতীয় কর্তৃপক্ষ বলে ছাত্রীর অভিযোগ।

তারপর ঠিক কী ঘটল?‌ বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপকের বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ করেনি। এই দেখে ছাত্রীটি বুঝতে পারেন বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ কিছু করেননি। তখন শান্তিনিকেতন থানায় ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা। তাঁর অভিযোগ পাওয়ার পরই ওই অধ্যাপককে গ্রেফতার করে পুলিশ। এখন উত্তরবঙ্গের এক কলেজের অধ্যাপক হিসাবে কাজ করছেন ওই নির্যাতিতা। একইসঙ্গে চলছে গবেষণার কাজ। বিশ্বভারতী কেন কোনও পদক্ষেপ করল না?‌ উঠছে প্রশ্ন। এই নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি বিশ্বভারতীর ভারপ্রাপ্ত জনসংযোগ আধিকারিক মহুয়া বন্দ্যোপাধ্যায়।

বাংলার মুখ খবর

Latest News

রিটেন করা যাবে ৫-৬ জনকে, ফিরবে পুরনো ‘অস্ত্র’? বুধবার IPL-র নিলাম বৈঠক BCCI-র রেশন কার্ডের যাবতীয় কাজ করুন ঘরে বসেই, হয়রানির দিন শেষ, নজির তৈরি করল বাংলা ‘বিদায়বেলাতেও’ বাইডেনকে তোপ, কমলাকে মিথ্যাবাদী বলে আক্রমণ ট্রাম্পের পুজো কমিটিগুলির কাছে পৌঁছচ্ছে কলকাতা পুলিশের নির্দেশ, মানতে হবে নানা বিধি ‘এখন আমায় শূলে চড়ানো হত..’, অল্প বয়সের কোন ভুলের জন্য এখন হাত কামড়ান সোনম? তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ছয় কার? ধেয়ে আসছে দুর্যোগের কালো মেঘ, কলকাতায় সহ দক্ষিণবঙ্গের ৮ জেলায় ভারী বৃষ্টি নামবে টি২০ ফরম্যাটে কেরিয়ারের সবচেয়ে খারাপ বোলিং ট্রেন্ট বোল্টের... 'তুমি কত ছল করে...' নচিকেতাকে মহানায়ক সম্মান!কটাক্ষ করে কী লিখলেন ঋত্বিক-কিঞ্জল মুখ্যমন্ত্রীর নয়াদিল্লি সফর বাতিল, নীতি আয়োগের বৈঠক পড়ল এখন বড় প্রশ্নের মুখে

Copyright © 2024 HT Digital Streams Limited. All RightsReserved.