বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। ফাইল ছবি
বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। ফাইল ছবি

'সংখ্যাগরিষ্ঠের ভোট ছাড়াই লাগু হয়েছিল সংবিধান, দরকারে বদল হবে'

  • বিদ্যুৎবাবু বলেন, ‘ভারতের সংবিধান সংখ্যাগরিষ্ঠের ভোট ছাড়াই। মাত্র ২৯৩ জনের ভোটে গৃহীত হয়েছিল সংবিধান। সেই সংবিধান আজ বেদ হয়ে গিয়েছে।

ভারতের সংবিধানের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী। দরকারে সংবিধান বদল করা হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। আর এসবই তিনি বলেন সাধারণতন্ত্র দিবসে পতাকা উত্তোলনের পর। যা নিয়ে নতুন করে বিতর্ক শুরু হয়েছে।

বিদ্যুৎবাবু বলেন, ‘ভারতের সংবিধান সংখ্যাগরিষ্ঠের ভোট ছাড়াই। মাত্র ২৯৩ জনের ভোটে গৃহীত হয়েছিল সংবিধান। সেই সংবিধান আজ বেদ হয়ে গিয়েছে।’ মানুষ চাইলে সংবিধান বদল করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

সাম্প্রতিককালে CAA বিরোধী আন্দোলনের আঁচ পড়েছে বিশ্বভারতীতেও। আপাত শান্ত এই প্রতিষ্ঠানে আলোচনাসভায় যোগ দিয়ে বামপন্থী ছাত্রদের বাধার মুখে পড়েন সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত। এর কয়েকদিন পর বিশ্বভারতীর এক ছাত্রকে মারধরের অভিযোগ ওঠে বহিরাগতদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ, বহিরাগতরা উপাচার্যের ঘনিষ্ঠ। এমনকী উপাচার্য তাদের বাইক বাহিনী এনে শিক্ষা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন বলেও জানা যায়।

বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর সাম্প্রতিক বক্তব্যের পর তার অপসারণ দাবি করেছে CPIM.


বন্ধ করুন