বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পুরাতন মালদায় ঢুকছে মহানন্দার জল, আশ্রয়ের খোঁজে দুর্গতরা, সরকারি সহায়তা কোথায় ?
পুরাতন মালদা শহরের ৮ ও ২০ নম্বর ওয়ার্ডে মহানন্দার জল  (নিজস্ব চিত্র )
পুরাতন মালদা শহরের ৮ ও ২০ নম্বর ওয়ার্ডে মহানন্দার জল  (নিজস্ব চিত্র )

পুরাতন মালদায় ঢুকছে মহানন্দার জল, আশ্রয়ের খোঁজে দুর্গতরা, সরকারি সহায়তা কোথায় ?

  • অনেকেই আতঙ্কে বাড়ি ছাড়তে শুরু করেছেন। রাস্তার ধারে কোনওরকমে ত্রিপল টাঙিয়ে কয়েকজন রয়েছেন।

ঘরের ভেতরে জল। বারান্দায় জল, উঠোনেও জল। সেই জল ঠেলেই যাতায়াত করছেন বাসিন্দারা। যেন আস্ত একটা নদী উঠে এসেছে পুর এলাকায়। স্থানীয় সূত্রে খবর, পুরাতন মালদার বিভিন্ন ওয়ার্ডে হু হু করে মহানন্দার জল ঢুকছে। অনেকে জলবন্দি অবস্থাতেই দিন কাটাচ্ছেন। কেউ আবার রাস্তার পাশে উঠে এসেছেন। তবে দুর্গত মানুষদের একটাই দাবি, স্থানীয় প্রাক্তন কাউন্সিলর একবার দুবার এলাকায় এসেছিলেন। কিন্তু সরকারি কোনও সহায়তা দুর্গতরা পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ। 

স্থানীয় সূত্রে খবর, পুরাতন মালদা পুরসভার নীচু ও অসংরক্ষিত এলাকায় মহানন্দার জল ঢুকতে শুরু করেছে। অনেকেই আতঙ্কে বাড়ি ছাড়তে শুরু করেছেন। রাস্তার ধারে কোনওরকমে ত্রিপল টাঙিয়ে কয়েকজন রয়েছেন। স্থানীয় মাদ্রাসাতেও কয়েকজন আশ্রয় নিয়েছেন। মূলত ৮ ও ২০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা মারাত্মক সমস্যার মধ্যে পড়েছেন। ভাসানি হালদার নামে এক দুর্গত বাসিন্দা বলেন, প্রাক্তন কাউন্সিলর ছাড়া আর কেউ আসেননি। একটু খাবারের ব্যবস্থা হলে ভালো হত। অপর বাসিন্দা আসিফ শেখ বলেন, ৫-৬দন ধরে জলবন্দি অবস্থায় রয়েছি। ত্রিপল কিংবা খাবার কিছুই জোটেনি। 

বাসিন্দাদের আশঙ্কা, রাতে জল বাড়লে পরিস্থিতি ভয়াবহ হতে পারে। পুরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের প্রাক্তন কাউন্সিলর শ্যাম মণ্ডল বলেন, অনেকে মাদ্রাসায় আশ্রয় নিয়েছেন। কেউ রাস্তার ধারেও আছেন। পুর প্রশাসক কলকাতায় আছেন। তাঁর সঙ্গে কথা হয়েছে। তবে দুর্গতদের খাবার দেওয়া যায়নি। আমরা তার চেষ্টা করছি। 

 

বন্ধ করুন