বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > শীতবস্ত্র খুলে হাতে নিতে হবে ছাতা! বছর শেষে ফের বৃষ্টির ভ্রূকুটি দক্ষিণবঙ্গে
কুয়াশার চাদরে ঢাকা কলকাতা (ছবি সৌজন্যে এএআই) (Utpal Sarkar)
কুয়াশার চাদরে ঢাকা কলকাতা (ছবি সৌজন্যে এএআই) (Utpal Sarkar)

শীতবস্ত্র খুলে হাতে নিতে হবে ছাতা! বছর শেষে ফের বৃষ্টির ভ্রূকুটি দক্ষিণবঙ্গে

  • আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস, আজকে দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে থাকতে পারে।

পৌষের সূচনায় শীতের মারকাটারি ব্যাটিং দেখেছইল বঙ্গবাসী। তবে বছরের শেষে এসে সেই শীত উধাও। এর আগে বড়দিনে শীত সেই অর্থে ছিল না। বর্ষবরণের রাতেও সর্বনিম্ন তাপমাত্রার পারদ ঊর্ধ্বমুখী হওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। পশ্চিমী ঝাঞ্ঝার কারণে আকাশ মেঘলা থাকবে। আর এতেই কমবে শীত৷ এদিকে বৃষ্টির সম্ভাবনায় অস্বস্তি অনেকটা বাড়বে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। সোমবার সপ্তাহের প্রথম দিন সকালে কুয়াশা ছিল ব্যাপক৷ সপ্তাহের বাকি দিনগুলির সকালও একই রকম ভাবে কুয়াশাচ্ছন্ন থাকবে কলকাতা ও সংলগ্ন এলাকা। একই চিত্র থাকবে দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলিতে। তবে বেলা বাড়তেই রৌদ্রজ্বল আবহাওয়া হবে।

আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাস, আজকে দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে থাকতে পারে। যা স্বাভাবিক। এদিকে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬ ডিগ্রি থাকতে পারে, যা স্বাভাবিকের চেয়ে ১ ডিগ্রি বেশি। ইতিমধ্যেই আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে তাপমাত্রা বাড়বে। সপ্তাহ যত এগোবে ঠান্ডা আরও কমবে।

এদিকে মঙ্গল এবং বুধবার হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে রাজ্যে। আগামী ২৮ ও ২৯ ডিসেম্বর দক্ষিণবঙ্গের বেশকিছু জেলায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা থাকছে। ২৯ তারিখ থেকে বৃষ্টি হতে পারে পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, পশ্চিম বর্ধমান, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, ঝাড়গাম ও পশ্চিম মেদিনীপুরে। পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে উত্তুরে বাতাস প্রবেশে বাধা পাচ্ছে। আর এই সময় বঙ্গোপসাগরের জলীয় বাষ্প ঢুকে পড়ায় বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আ এর জেরেই বৃষ্টি। এদিকে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা সরলে উত্তুরে হাওয়ার প্রবেশের কথা বলছেন আবহাওয়াবিদরা।

বন্ধ করুন