বাড়ি > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > তৃণমূল কর্মীদের জুতোপেটা করব, পুলিশকে বউ–বাচ্চার মুখ দেখতে দেব না: দিলীপ ঘোষ
দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি
দিলীপ ঘোষ। ফাইল ছবি

তৃণমূল কর্মীদের জুতোপেটা করব, পুলিশকে বউ–বাচ্চার মুখ দেখতে দেব না: দিলীপ ঘোষ

  • তিনি নতুন স্লোগানের সুরে বলেন, ‘‌পুলিশে হাফ একুশে সাফ।’‌ হাততালি আর জয় শ্রীরাম ধ্বনিতে ফেটে পড়ে সভামঞ্চ।

ফের বেলাগাম বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। রবিবার উত্তর ২৪ পরগনার ঘোলা বিলকান্দায় আয়োজিত চা চক্রের মঞ্চ থেকে তৃণমূল কর্মীদের জুতোপেটা করার হুমকি দিলেন তিনি। পুলিশকেও ছেড়ে কথা বলেননি বাংলার এই বিজেপি নেতা।

কয়েকদিন আগেই উত্তর ২৪ পরগনার দুর্গানগর–সহ বিভিন্ন এলাকায় বিজেপি–র চা চক্রের মঞ্চে হামলা চালানোর অভিযোগ ওঠে তৃণমূল কর্মী–সমর্থকদের বিরুদ্ধে। এদিন বিলকান্দায় সভামঞ্চে সেই প্রসঙ্গ টেনেই ক্ষুব্ধ দিলীপ ঘোষ রীতিমতো হুঁশিয়ারি দেন তৃণমূল কর্মী ও পুলিশকে। 

তিনি এদিন বলেন, ‌‘‌যারা মানুষকে পুলিশ দিয়ে ভয় দেখিয়ে রেখেছে তাদের আমরা ছাড়ব না। সব ডায়েরিতে লিখে রাখছি। এবার রাস্তায় সব তৃণমূল কর্মীদের জুতোপেটা করব। এর পরেই তিনি নতুন স্লোগানের সুরে বলেন, ‘‌পুলিশে হাফ একুশে সাফ।’‌ হাততালি আর জয় শ্রীরাম ধ্বনিতে ফেটে পড়ে সভামঞ্চ।

এদিন ওই সভা থেকে রাজ্য পুলিশকেও এক হাতে নিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। পুলিশকে দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে তিনি বলেন, ‘‌নেতাদের চামচাগিরি করে ভাবছেন ভাল আছেন, পকেট ভরছে, আনন্দে আছেন। এই আনন্দ বেশিদিন টিকবে না। এক বছর পরে ভেবে রাখুন, কোথায় যেতে হবে।’‌ এর পরই পুলিশকে হুঁশিয়ারি দিয়ে দিলীপ বলেন, ‘‌বউ–বাচ্চার মুখ দেখতে দেব না। ২ নম্বরি পয়সা কামিয়ে ২৫ লাখ টাকা খরচ করে ছেলেকে বেঙ্গালুরুতে ভর্তি করিয়েছেন?‌ বলে রাখছি, সেই ছেলে ডাক্তারও হবে না, ইঞ্জিনিয়ারও হবে না। তাকে পরিযায়ী শ্রমিক করে ছাড়ব আমি।’‌

এ সব শুনে স্থানীয় নেতৃত্ব স্পষ্ট বলেন, ‘দিলীপ ঘোষের থেকে এর থেকে বেশি কী আর আশা করা যায়। যার কোনও সংস্কৃতি বলে কিছু নেই, অশিক্ষিত লোক, সে তো এরকম বলবেই। ও যা সব বলছে তা করলে আমরা ঝাঁটা হাতে প্রতিবাদ করব।’‌

বন্ধ করুন