বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না নিলে সরাসরি থানায় অভিযোগ জানাতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা
নিজের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড হাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি
নিজের স্বাস্থ্যসাথী কার্ড হাতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না নিলে সরাসরি থানায় অভিযোগ জানাতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা

  • অভিযোগ উঠেছে, ‘‌দুয়ারে সরকার’‌ কর্মসূচিতে অনেকেই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড পাচ্ছেন না। পেলেও দেওয়া হচ্ছে অস্থায়ী কার্ড। তা নিয়েও সাফাই দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থাকলেও মিলছে না পরিষেবা। একাধিক বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোমের বিরুদ্ধে সম্প্রতি এমনই অভিযোগ তুলেছে সাধারণ মানুষ। সোমবার পুরশুড়ার জনসভা থেকে এ নিয়ে কড়া বার্তা দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোনও নার্সিংহোম বা বেসরকারি হাসপাতাল, যা এই প্রকল্পের পরিষেবা প্রদানে অন্তর্ভুক্ত, তারা যদি স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না নেয়, তবে সরাসরি থানায় অভিযোগ জানাতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

সোমবার পুরশুড়ার সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌‌প্রথম প্রথম মনে রাখবেন কেউ কেউ কার্ড নাও নিতে পারে। যদি স্বাস্থ্যসাথী কার্ড না নেয় সঙ্গে সঙ্গে থানায় অভিযোগ জানাবেন। আর কার্ডের পেছনেই অভিযোগ জানানোর একটি ফোন নম্বর রয়েছে। তাতে ফোন করলেই সঙ্গে সঙ্গে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’‌ এভাবেই এদিন আশ্বস্ত করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

অভিযোগ উঠেছে, ‘‌দুয়ারে সরকার’‌ কর্মসূচিতে অনেকেই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড পাচ্ছেন না। পেলেও দেওয়া হচ্ছে অস্থায়ী কার্ড। তা নিয়েও সাফাই দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি পরিষ্কার জানিয়েছেন, ‘‌স্বাস্থ্যসাথী কার্ড সবাই পাবেন। কিন্তু মনে রাখবেন বায়োমেট্রিক কার্ড তৈরি করতে মেশিন লাগে। সেই সব মেশিন একসঙ্গে নিয়ে প্রতিদিন দেড় লক্ষের বেশি কার্ড তৈরি করা সম্ভব হচ্ছে না। কিন্তু আমাদের কাছে কয়েক কোটি আবেদনপত্র জমা পড়েছে। তাই একটু সময় লাগছে।’‌

আসন্ন নির্বাচনের কারণেই আপাতত অস্থায়ী কার্ড দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এবং তাতে একইরকম সুবিধা মিলবে বলে তাঁর দাবি। তিনি বলেন, ‘‌যাঁরা পেয়ে গেলেন তো খুব ভাল। কিন্তু যাঁরা পাবেন না তাঁদের হাতে একটা অস্থায়ী স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দিয়ে দেওয়া হবে। কারণ, হাতে সময় বেশি নেই। নির্বাচন ঘোষণা হতে চলেছে। কিন্তু এই কাজ চলতে থাকবে। এই অস্থায়ী কার্ডে একই পরিষেবা পাওয়া যাবে। এবং সময় এলে অস্থায়ী কার্ডের বিনিময়ে আসল স্মার্ট কার্ডটিও দেওয়া হবে।’‌

এদিন স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে বিজেপি–র করা অপপ্রচারের কথাও তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী। ‌তিনি জানান, ‘‌বিজেপি–র লোকজন নোংরামি করে কয়েকদিন আগে একটা ছবি দেখাচ্ছিল। যেখানে হাসপাতালে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দেখানোর পরও পরিষেবা মেলেনি।’‌ মুখ্যমন্ত্রীর দাবি, ‘‌আসলে তথ্যটা আলাদা। ওই ব্যক্তি তাঁর আগের কোনও একটা বিল মেটাতে গিয়েছিলেন। সেই তথ্য কিন্তু বিজেপি দেবে না। যখন কার্ড ইস্যু হবে তখন থেকে পরিষেবা মিলবে। তার আগের বিলের টাকা কিন্তু স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দেবে না।’‌

বন্ধ করুন