প্রতি মাসে পেনশন পাবেন তফিসিলি প্রবীণ ব্যক্তিরা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
প্রতি মাসে পেনশন পাবেন তফিসিলি প্রবীণ ব্যক্তিরা (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

West Bengal Govt Pension Scheme: এবার থেকে মাসিক পেনশন দেবে সরকার

  • মমতা জানান, পেনশন পাওয়ার জন্য কারোর কাছে দৌড়াতে হবে না। শুধু বিডিও অফিসে গিয়ে আবেদনপত্র জমা দিলেই হবে।

এখন থেকে ৬০ বছর হলেই তফসিলি ব্যক্তিদের ১,০০০ টাকা বার্ধক্য ভাতা দেবে রাজ্য সরকার। এছাড়াও ৬০ বছর বা তার বেশি আদিবাসী ব্যক্তিদেরও পেনশন দেওয়া হবে। আগামী ১ এপ্রিল থেকে সেই পেনশন মিলবে।

এ বারের বাজেটেই ‘জয় জহার’ প্রকল্প চালুর ঘোষণা করেন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। সেই প্রকল্প অনুযায়ী, প্রতি মাসে ১,০০০ টাকা করে ভাতা পাবেন আদিবাসী ব্যক্তিরা। পরে নিজেও সেই ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্প্রতি কালিয়াগঞ্জে তিনি ঘোষণা করেন, প্রবীণ তফিসিলি ব্যক্তিদেরও প্রতি মাসে বার্ধক্য ভাতা দেওয়া হবে। তাঁরা মাসে ১,০০০ টাকা ভাতা পাবেন।

মমতা বলেন, 'জয় বাংলা প্রকল্পের আওতায় তফিসিলিদের ৬০ বছর হলেই মাসে ১,০০০ টাকা করে পেনশন দেওয়া হবে। তা মাসের এক তারিখে দেওয়া হবে। জয় জহার প্রকল্পে আদিবাসীদের বয়স ৬০ হলে পেনশন দেবে সরকার।' পাশাপাশি মমতা জানান, পেনশন পাওয়ার জন্য কারোর কাছে দৌড়াতে হবে না। শুধু বিডিও অফিসে গিয়ে আবেদনপত্র জমা দিলেই হবে। একইসঙ্গে তিনি জানান, পরিবারের কোনও একজনের তফসিলি শংসাপত্র থাকলেই হবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।

পরে সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, 'তফসিলি বন্ধু' প্রকল্পের আওতায় প্রবীণ তফসিলি ব্যক্তিরা ভাতা পাবেন। এই প্রকল্পগুলিও 'জয় বাংলা' আওতায় চলে আসছে। পাশাপাশি, তাঁতি, মৎস্যজীবীরাও 'জয় বাংলা' প্রকল্পের আওতায় মাসে ১,০০০ টাকা ভাতা পাবেন। আগে তাঁরা মাসিক ৬০০-৭০০ টাকা ভাতা পেতেন। সেই টাকা সরাসরি পেনশনভোগীর অ্যাকাউন্টে ঢুকবে। পুরো প্রকল্পের ফলে ৬০ লাখ মানুষ উপকৃত বলে দাবি রাজ্যের।

অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম

বন্ধ করুন