বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > পথে নেমে পালিয়ে গেলেন তৃণমূল বিধায়ক!‌ পথশ্রী অভিযানে ধাঁধা
স্থানীয়দের অভিযোগ, মেরামতির কাজ না করে উলটে অসম্পূর্ণ নতুন রাস্তা উদ্বোধন হচ্ছে। (প্রতীকী ছবি)
স্থানীয়দের অভিযোগ, মেরামতির কাজ না করে উলটে অসম্পূর্ণ নতুন রাস্তা উদ্বোধন হচ্ছে। (প্রতীকী ছবি)

পথে নেমে পালিয়ে গেলেন তৃণমূল বিধায়ক!‌ পথশ্রী অভিযানে ধাঁধা

  • নতুন রাস্তা উদ্বোধনে যান ডেবরার বিধায়ক সেলিমা খাতুন বিবি। আর সেখানেই দলীয় কর্মীদের হেনস্থার মুখে পড়েন তিনি।

পথ হারাবেন বলেই পথে নেমেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই পথে যে এত ধাঁধা, তা বুঝতে পারেননি। অগত্যা পালিয়ে বাঁচা ছাড়া উপায় ছিল না তৃণমূল বিধায়কের। 

মুখ্যমন্ত্রী সূচনা করেছিলেন পথশ্রী প্রকল্পের। সেই প্রকল্পের উদ্বোধনে এসে তৃণমূল কর্মীদেরই ক্ষোভ–বিক্ষোভ–হেনস্থার মুখে পড়লেন দলীয় বিধায়ক, যা তিনি আশা করেননি। ঘূণাক্ষরে টেরও পাননি। তাই পথে নেমে পরিস্থিতি ঘোরালো দেখে শেষ পর্যন্ত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যেতে বাধ্য হলেন বিধায়ক সেলিমা খাতুন। 

ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ডেবরা বিধানসভার ৪ নম্বর খানামোহান অঞ্চলের পশ্চিমলহনা বাজারে। আর এই ঘটনা সোশ্যাল মিডিয়ায় চাউর হতে তিনি বেশ অস্বস্তিতে পড়ে যান।

উল্লেখ্য, উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে ১২ হাজার কিলোমিটার গ্রামীণ রাস্তার উন্নয়নে পথশ্রী অভিযানের সূচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী ১৫ দিন রাজ্যজুড়ে রাস্তার উদ্বোধন করার কথা স্থানীয় বিধায়ক, বিডিও এবং পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি–সহ অনান্যদের। তাই পশ্চিমলহনা এলাকায় নতুন রাস্তা উদ্বোধনে যান ডেবরার বিধায়ক সেলিমা খাতুন বিবি। আর সেখানেই দলীয় কর্মীদের হেনস্থার মুখে পড়েন তিনি। চেষ্টা করেছিলেন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে। কিন্তু তা না হওয়ায় অবশেষে এলাকা ছাড়েন বিধায়ক।

কেন বিক্ষোভের মুখে পড়লেন সেলিনা খাতুন বিবি?‌ 

দলীয় কর্মী ও স্থানীয়দের অভিযোগ, দীর্ঘ দিন ধরে এলাকার রাস্তাগুলি ভগ্ন অবস্থায় পড়ে রয়েছে। সেগুলির মেরামতির কাজ না করে উলটে নতুন রাস্তা উদ্বোধন হচ্ছে। যা কিনা সম্পূর্ণ নয়। 

এলাকাবাসীর দাবি, আগে রাস্তা সম্পূর্ণ হোক। তারপর তো উদ্বোধন হবে। বিক্ষোভের থামাতে ঘটনাস্থলে আসে ডেবরা থানার পুলিশ। তবে তাতে কোনও লাভ হয় না। বেগতিক দেখে শেষমেশ এলাকা ছাড়তে হয় বিধায়ক সেলিমা খাতুন বিবিকে।

বন্ধ করুন