বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > কেন প্রায় ৪০% কৃষক পিএম-কিষান প্রকল্পের টাকা পাননি? কেন্দ্রকে প্রশ্ন নবান্নের
পিএম কিষান নিয়ে কেন্দ্রকে প্রশ্ন রাজ্যের। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
পিএম কিষান নিয়ে কেন্দ্রকে প্রশ্ন রাজ্যের। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

কেন প্রায় ৪০% কৃষক পিএম-কিষান প্রকল্পের টাকা পাননি? কেন্দ্রকে প্রশ্ন নবান্নের

নবান্ন দাবি করল, রাজ্যের ৩৮.৫১ লাখ কৃষককে টাকা দেওয়া হবে জানিয়েছিল নরেন্দ্র মোদী সরকার। কিন্তু মাত্র ২৩.৭৭ লাখ কৃষকের অ্যাকাউন্টে ঢাকা ঢুকছে।

পিএম কিষান প্রকল্প এতদিন রাজ্যের বিরুদ্ধে তোপ দাগত কেন্দ্র। এবার পালটা নবান্ন দাবি করল, রাজ্যের ৩৮.৫১ লাখ কৃষককে টাকা দেওয়া হবে জানিয়েছিল নরেন্দ্র মোদী সরকার। কিন্তু মাত্র ২৩.৭৭ লাখ কৃষকের অ্যাকাউন্টে ঢাকা ঢুকছে। বাকি প্রায় ১৫ লাখ কৃষক কেন টাকা পাননি, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে নবান্ন। 

সোমবার দেশের সব রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী বা কৃষি সচিবদের সঙ্গে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমর। পশ্চিমবঙ্গ থেকে যোগ দেন কৃষিমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় এবং কৃষি সচিব ওঙ্কার সিং মিনা। সেখানে নবান্নের তরফে অভিযোগ করা হয়, প্রয়োজনীয় তথ্য দেওয়া সত্ত্বেও পশ্চিমবঙ্গের কৃষকদের ঠিকমতো টাকা দিচ্ছে না কেন্দ্র। পরিসংখ্যান তুলে ধরে জানানো হয়, পিএম কিষান প্রকল্পের কিস্তির টাকার জন্য রাজ্যের ৪৬ লাখের বেশি কৃষকের নাম কেন্দ্রের পোর্টালে আপলোড করা হয়েছিল। কিন্তু তাঁদের মধ্যে সাত লাখেরও বেশি কৃষকের নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। তারপরও যাঁদের নামে অনুমোদন দিয়েছিল, তাঁদের মধ্যে প্রায় ৪০ শতাংশ কৃষক টাকা পাননি। ওই কৃষকরা কেন পিএম কিষান প্রকল্পের আর্থিক সহযোগিতা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে, তা জানতে চায় নবান্ন। পুরো বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভপ্রকাশ করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।

নবান্ন সূত্রে খবর, পশ্চিমবঙ্গের প্রশ্নের কোনও সদুত্তর দিতে পারেনি কেন্দ্র। উলটে রাজ্যের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দাবি করা হয়েছে, ওই চাষিদের আধার কার্ড সংক্রান্ত তথ্য সঠিক সময় মেলেনি। সেজন্য তাঁদের অ্যাকাউন্টে টাকা ঢোকেনি। যদিও সেই যুক্তির প্রেক্ষিতে পালটা দিয়েছে নবান্ন। সাফ জানানো হয়েছে, যাবতীয় তথ্য যাচাই করে কৃষকদের তথ্য আপলোড করা হয়েছিল। বাকি যে তথ্য লাগবে, তার দায়িত্ব আছে কেন্দ্রের উপর। সেই কাজে গাফিলতি হলে কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলির জবাবদিহি করা উচিত।

বন্ধ করুন