সায়ন্তন বসু। ফাইল ছবি
সায়ন্তন বসু। ফাইল ছবি

পশ্চিমবঙ্গ কি ভারতের বাইরে? তাহলে পুজো করতে অনুমতি নিতে হবে কেন: সায়ন্তন বসু

  • পুলিশকে বিঁধতে এদিন বাছাবাছা বিশেষণ ব্যবহার করেন সায়ন্তন। বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ আসলে বাংলাদেশি পুলিশ হয়ে গিয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গ কি ভারতের অংশ? প্রজাতন্ত্র দিবসে এমনই প্রশ্ন তুললেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। তাঁর প্রশ্ন, ‘ভারতমাতার পুজো করলে পুলিশ ধরবে। অথচ ট্রেনে বাসে যারা আগুন জ্বালাবে তারা বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াবে।’ রবিবার হাওড়ার বাউড়িয়া CAA-র সমর্থনে এক প্রচারে এমনটাই বলেন তিনি।

প্রজাতন্ত্র দিবসে হাওড়ার প্রতিটি থানার সামনে ভারতমাতার পুজোর আয়োজন করেছিল বিজেপি। কিন্তু কোথাও পুজোর অনুমতি দেয়নি পুলিশ। উলটে প্রতিমা আনতে বাধা দেওয়া হয়েছে বলে দাবি তাদের।

পুলিশকে বিঁধতে এদিন বাছাবাছা বিশেষণ ব্যবহার করেন সায়ন্তন। বলেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ আসলে বাংলাদেশি পুলিশ হয়ে গিয়েছে। এখানে ভারতমাতার পুজোয় অনুমতি নিতে হয়। রাস্তায় বসে নমাজ পড়তে কিন্তু কোনও অনুমতি লাগে না।’

এদিন হাওড়ার তৃণমূল নেতা অরুপ রায়কেও বিঁধতে ছাড়েননি সায়ন্তন। বলেছেন, ওর লোকই ট্রেন পুড়িয়েছে। দরকার হলে ওর বাড়ি গিয়ে ভারতমাতার পুজো করব।

ভারতমাতার পুজো নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই গরমাগরম বাদানুবাদ চলছে হাওড়ায়। এদিন অনুমতি ছাড়াই প্রায় সব জায়গায় পুজো করে বিজেপি। বিজেপির দাবি, যত নিয়ম হিন্দুদের জন্য। অন্যদের তো এসব মানতে হয় না।



বন্ধ করুন