অভিযুক্ত স্ত্রী পাপড়ি চট্টরাজ
অভিযুক্ত স্ত্রী পাপড়ি চট্টরাজ

ডিভোর্সে রাজি না হওয়ায় প্রেমিককে দিয়ে অধ্যাপক স্বামীকে খুন করিয়েছিলেন স্ত্রী

মঙ্গলবার রাতে ঘটনার পুনর্নির্মাণ করায় পুলিশ। কী ভাবে অজয় চট্টরাজ বাড়িতে ঢুকল। কী করে সে অরূপবাবুকে খুন করল। আর কী করেই বা পালাল তা অভিনয় করে দেখায় সে।

বারবার বললেও ডিভোর্স দিতে রাজি হননি স্বামী। তাই প্রেমিককে দিয়ে তাঁকে খুন করান স্ত্রী পাপড়ি। পুরুলিয়ায় অধ্যাপক খুনে এমনই তথ্য উঠে এসেছে। ঘটনায় আগেই স্ত্রী পাপড়ি ও তাঁর প্রেমিক অজয়কে গ্রেফতার করেছে পুরুলিয়া পুলিশ।

গত ১৭ জানুয়ারি রাতে নিজের বাড়িতে খুন হন পুরুলিয়া শহরের বাসিন্দা অর্থনীতির অধ্যাপক অরুপ চট্টরাজ। রাতে নিজের ঘরে ঘুমাতে গেলে তাঁকে গলায় মাফলার জড়িয়ে খুন করে আততায়ী। এর পর ছাদ দিয়ে দড়ি বেয়ে পালায় সে। ঘটনার তদন্তে নেমে গত ২৬ জানুয়ারি খুনি অজয় ও নিহতের স্ত্রী পাপড়িকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার পর থেকেই উঠে আসতে থাকে নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য।

পুলিশ জানিয়েছে, খুনের অন্তত আড়াই মাস আগে পুরুলিয়া শহরেই স্বামী – স্ত্রী পরিচয় দিয়ে ঘরভাড়া নিয়েছিলেন পাপড়ি ও অজয়। স্কুল থেকে ফেরার সময় মাঝে মাঝেই সেখানে দীর্ঘ সময় কাটাতেন তিনি।

মঙ্গলবার রাতে ঘটনার পুনর্নির্মাণ করায় পুলিশ। কী ভাবে অজয় চট্টরাজ বাড়িতে ঢুকল। কী করে সে অরূপবাবুকে খুন করল। আর কী করেই বা পালাল তা অভিনয় করে দেখায় সে।

তদন্তকারীরা জানান, ১৭ জানুয়ারি সন্ধ্যায় টিউশন দিচ্ছিলেন পেশায় শিক্ষক পাপড়িদেবী। ছাত্রছাত্রীরা বেরোনোর সময় সবার চোখ এড়িয়ে বাড়িতে ঢোকে অজয়।

গোটা ঘটনার সব থেকে বেশি প্রভাব পড়েছে অজয় ও পাপড়ির মেয়ের ওপর। আপাতত দাদু – ঠাকুমার কাছেই রয়েছে সে। বাবাকে খুন করিয়েছে মা, এটা মেনে নিতে পারছে না সে। মায়ের বন্দিদশায় একাকীত্বে ভুগছে সে।



বন্ধ করুন