সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মেনে চলছে ত্রাণ বিলি।
সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং মেনে চলছে ত্রাণ বিলি।

সুন্দরবনের প্রত্যন্ত গ্রামে ত্রাণ নিয়ে পৌঁছলেন স্বেচ্ছাসেবীরা

  • দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী ব্লকের ঝড়খালি গ্রাম পঞ্চায়েতের দুর্গত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিলি করল সেভিং টাইগার নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা

শপথ ছিল বাঘ বাঁচানোর, তাই বলে বনবাসী মানুষগুলো কখনো অনাহারে মরলে হাতে হাত রেখে বসে থাকা যায় না কি? লকডাউনে স্তব্ধ গোটা বিশ্ব। দুর্গম বনাঞ্চলে প্রাণ হাতে করে গিয়ে সংগ্রহ করে আনা সামগ্রী তাই বিক্রি করার উপায় নেই। ফলে আয় বন্ধ। সুন্দরবনের বাসিন্দা এমন মানুষদের পাশে দাঁড়াল সেভিং টাইগার নামে একটি সংগঠন। প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হল ত্রাণ।

দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসন্তী ব্লকের ঝড়খালি গ্রাম পঞ্চায়েতের দুর্গত মানুষের মধ্যে ত্রাণ বিলি করল সেভিং টাইগার নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত সংস্থাটি ভারত ও নেপালে বাঘ সংরক্ষণের কাজ করেন তাঁরা। কিন্তু মানুষের বিপদেও কি দূরে থাকা যায়?

সাজানো রয়েছে ত্রাণসামগ্রী।
সাজানো রয়েছে ত্রাণসামগ্রী।



ঝড়খালির ২১৫টি পরিবারকে ত্রাণ দিয়েছে সংস্থাটি। ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে চাল, ডাল, আলু, সয়া বড়ি, সরষের তেল আর অবশ্যই সাবান। প্রত্যন্ত এই এলাকায় হয়তো করোনা ঢুকতে পারবে না। কিন্তু অনাহার যে আরও সংক্রামক। তাতে কিছুটা সুরাহা দেবে এই সামগ্রী।


বন্ধ করুন