বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > উদ্বোধনের ৩ দিনেই পুড়ে ছাই বিজেপির অস্থায়ী দফতর, উত্তেজনা মাথাভাঙায়
বিজেপি–র দলীয় পতাকা। ফাইল ছবি
বিজেপি–র দলীয় পতাকা। ফাইল ছবি

উদ্বোধনের ৩ দিনেই পুড়ে ছাই বিজেপির অস্থায়ী দফতর, উত্তেজনা মাথাভাঙায়

  • গত ২৫ মার্চ বিজেপির এই অস্থায়ী দলীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন হয়

উদ্বোধনের তিন দিনের মাথায় বিজেপির দলীয় কার্যালয় পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে উত্তপ্ত হয়ে উঠল কোচবিহারের মাথাভাঙা। দ্বিতীয় দফা ভোটের আগেই ফের রাজনৈতিক অশান্তির সৃষ্টি হয়েছে ওই এলাকায়। ঘটনায় তৃণমূলের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে বিজেপি নের্তৃত্ব। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে তৃণমূল।

মাথাভাঙা বিধানসভা কেন্দ্রের বড়শৌলমারী গ্রাম পঞ্চায়েতের চ্যাংড়াবান্ধা মিলন সংঘের পাশে এই অস্থায়ী দফতরটি তৈরি করেছিল বিজেপি। রবিবার রাতে তাদের দলীয় কার্যালয় পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে বিজেপি। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ২৫ মার্চ বিজেপির এই অস্থায়ী দলীয় কার্যালয়ের উদ্বোধন করা হয়। আরও জানা গিয়েছে, মূলত ভোটের কাজ সামলানোর জন্যই অস্থায়ীভাবে এই দফতর তৈরি করে স্থানীয় বিজেপি নের্তৃত্ব। অবশ্য রাতে এখানে কেউ থাকতেন না। বিজেপির অভিযোগ, অন্ধকারের সুযোগে কেউ বা কারা তাদের দফতরে আগুন লাগিয়ে দিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। সোমবার সকালে বিজেপি নেতারা ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখেন, প্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছে সেই অস্থায়ী দফতরটি। অগুন লাগায় পুড়ে ছাই হয়ে যায় পুরো দফতরটি।

স্থানীয় এক বিজেপি নেতার দাবি, আগে এই অঞ্চলে তাদের তেমন কোনও অস্তিত্ব ছিল না। কিন্তু ধীরে ধীরে এই এলাকায় বিজেপির সংগঠন মজবুত হয়েছে। ওই নেতা বলেন, ‘ সেজন্য ভয় পেয়ে তৃণমূল এই সমস্ত কাজ করছে।’

অবশ্য বিজেপির অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল। এপ্রসঙ্গে তৃণমূলের পঞ্চায়েতের কনভেনার ধনীরাম বর্মন বলেন, ‘রাতের অন্ধকারে কেউ বা কারা এই কাজ করেছে, তবে এর সঙ্গে তৃণমূলের কোনও সম্পর্ক নেই।’ যে কোনও দলীয় কার্যালয়ের উপর হামলা নিন্দনীয় ঘটনা বলে মন্তব্য করেন তিনি। এই ঘটনায় তদন্তের পর কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার দাবিও জানিয়েছেন তিনি।

বন্ধ করুন