বাংলা নিউজ > বাংলার মুখ > অন্যান্য জেলা > ভেস্তে গেল নারী পাচার, উদ্ধার চার কিশোরী, পুলিশের তৎপরতায় গ্রেফতার পাচারকারী
দিল্লিতে নারী পাচারের ছক কষেছিল কয়েকজন পাচারকারী।
দিল্লিতে নারী পাচারের ছক কষেছিল কয়েকজন পাচারকারী।

ভেস্তে গেল নারী পাচার, উদ্ধার চার কিশোরী, পুলিশের তৎপরতায় গ্রেফতার পাচারকারী

  • তবে তার আগেই উদ্ধার হল চার কিশোরী। আটক হল পাচারকারীদের। ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ার মনোজিৎ নাগ বাসস্ট্যান্ড এলাকায়।

বানচাল হয়ে গেল নারী পাচারের ছক। বাংলাকে সেফ করিডর করে দিল্লিতে নারী পাচারের ছক কষেছিল কয়েকজন পাচারকারী। কিন্তু জেলা পুলিশের তৎপরতায় তা বানচাল হয়ে গেল। অসম রাজ্যের মেয়েদের পাচার করে দিতে আলিপুরদুয়ারকে ভায়া রুট করা হয়েছিল। তবে তার আগেই উদ্ধার হল চার কিশোরী। আটক হল পাচারকারীদের। ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ার মনোজিৎ নাগ বাসস্ট্যান্ড এলাকায়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, অসম থেকে বাড়ির কাউকে না জানিয়ে এক মহিলা চার কিশোরীকে আলিপুরদুয়ারে নিয়ে এসেছিল। ওই চার কিশোরীর মধ্যে ছিল দু’জন স্কুল ছাত্রী। তাদেরকেই দিল্লির পতিতাপল্লীতে বিক্রি করার ছক কষা হয়েছিল। কিন্তু আলিপুরদুয়ার মনোজিৎ নাগ বাসস্ট্যান্ডে তাদের সন্দেহজনকভাবে ঘোরাঘুরি করতে দেখে বাস কর্মীরা। সন্দেহ হওয়ায় জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেন তাঁরা। চার কিশোরীতে দিল্লিতে কাজে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে শুনে পুলিশে খবর দেন ওই বাস কর্মীরাই। পুলিশ এসে ওই চার কিশোরীকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান। আটক করা হয় ওই মহিলা পাচারকারীকে। পাচারকারীর মধ্যে এক মহিলা পাচারকারী সবার চোখে ধুলো দিয়ে পালিয়ে যায়।

পুলিশ সূত্রে খবর, এই পাচারকারী মহিলার বাড়িও অসমের গোঁসাইগাও। সে এই চার কিশোরীকে দিল্লিতে কাজ দেওয়ার নাম করে ফুঁসলিয়ে বাড়ি থেকে বের করা আনে বলে অভিযোগ। অসম থেকে আসা একটি গাড়িতে এক মহিলাকে টানা হেঁচড়া করা হচ্ছিল। তাতেই সন্দেহ হয়। পুলিশে খবর দেন তাঁরা। যে চার কিশোরীকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, তারা সবাই পড়াশোনা করছে। বাড়ির অজান্তেই তাদের নিয়ে দিল্লি নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এই চক্রের পিছনে মাথাকে খুঁজছে পুলিশ।

বন্ধ করুন